সরকারি অর্থ তছরুপের অভিযোগে সাতক্ষীরার পৌর মেয়র চিশতী বরখাস্ত

রঘুনাথ খাঁঃ

ফৌজদারি মামলায় অভিযোগপত্র অর্ন্তভুক্ত হয়েও ব্যক্তিগত ক্ষমতার অপব্যবহার করে সরকারি অর্থ তছরুপের অভিযোগ প্রমানিত হওয়ায় সাতক্ষীরার পৌর মেয়র ও বিএনপি নেতা তাজকিন আহমেদ চিশতীকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। ১৫ জুন স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয় স্থানীয় সরকার বিভাগ পৌর-১ এর ৪৬.০০.০০০০.০৬৩.২৭.০০৪.২২-৭৭০ নং স্মারকে উপ-সচিব মোহাম্মদ ফারুক হোসেন স্বাক্ষরিত এক প্রজ্ঞাপনে তাকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়।

প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, সাতক্ষীরা পৌরসভার মেয়র তাজকিন আহমেদ এর বিরুদ্ধে বিদ্যমান বিধি- বিধান যথাযথভাবে অনুসরণ না করে মার্চ ২০১৬ হতে জুন ২০২১ পর্যন্ত সময়ে ৫৮ লক্ষ ১৯ উনিশ হাজার ৭০১ টাকা পানির বিল মওকুফসহ বিল যথাযথভাবে আদায় না করে অধিকাংশ ক্ষেত্রে মেয়র কর্তৃক এককভাবে মওকুফ করার অভিযোগ তদন্তে প্রমাণিত হয়েছে। ১৪২৩-১৪২৮ বঙ্গাব্দ পর্যন্ত ৬ বছরে সাতক্ষীরা পৌরসভার হাট-বাজার ইজারা বাবদ ৬৬ লক্ষ ৩৯ হাজার ৫৫১ টাকা বকেয়া রয়েছে। এছাড়া ভ্যাট, আয়কর বাবদ ৩৬ লক্ষ ৭০ হাজার ৯৭০ টাকা আদায় করে তা সরকারী খাতে জমা করা হয়নি এবং উক্ত সময়ের ইজারা লব্ধ অর্থ হাট-বাজার ইজারা নীতিমালা-২০১১ অনুযায়ী বন্টন না করার অভিযোগ তদন্তে প্রমাণিত হয়েছে।

তদন্তকালীন সময় পর্যন্ত মোট ১ কোটি ২৬ লক্ষ ২২ হাজার ৯৪৩ টাকার পৌরকর মওকুফ করা হয়েছে। উক্ত পৌরকর যথাযথভাবে আদায় না করে অধিকাংশ ক্ষেত্রে মেয়র কর্তৃক এককভাবে মওকুফ করার অভিযোগ তদন্তে প্রমাণিত হয়েছে এবং নিয়ম-কানুন যথাযথভাবে অনুসরণ না করে মার্চ ২০১৬ হতে ডিসেম্বর ২০২১ পর্যন্ত সময়ে ১৪ লক্ষ ১৩ হাজার ৭২৬ টাকা ট্রেড লাইসেন্স ফি মেয়র কর্তৃক এককভাবে মওকুফ করার অভিযোগ তদন্তে প্রমাণিত হয়েছে।

স্থানীয় সরকার (পৌরসভা) আইন, ২০০৯ এর ধারা ৩১(১) মোতাবেক সাতক্ষীরা পৌরসভার মেয়র তাজকিন আহমেদ এর বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগের মধ্যে উল্লেখিত অভিযোগসমূহ তদন্তে প্রমাণিত হওয়ায় স্থানীয় সরকার (পৌরসভা) আইন, ২০০৯ এর ধারা ৩২ এর উপ-ধারা (১)(ঘ) মোতাবেক অসদাচরণ ও ক্ষমতার অপব্যবহারের দায়ে দোষী সাব্যস্ত করে একই আইনের ধারা ৩১(১)অনুযায়ী সাতক্ষীরা পৌরসভার মেয়রের পদ থেকে তাকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হল।

প্রসঙ্গত, গত বছরের নভেম্বর মাসে সাতক্ষীরা পৌরসভার মহিলা কাউন্সিলর রাবেয়া খাতুন ও জাহাঙ্গীর হোসেন কালু ব্যতীত ১০ জনপৌর কাউন্সিলর কাউন্সিলর পৌনসভার পানির বিল, ইজারার টাকা অনাদায় ও অপব্যবহারসহ বিভিন্ন অনিয়ম ও দূর্ণীতি নিয়ে পৌর মেয়র তাসকিন আহম্মেদ চিশতির বিরুদ্ধে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ে অভিযোগ করেন। অভিযোগের প্রথম তদন্ত করেন স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের সাতক্ষীরা শাখার উপপরিচালক মাসরুবা
ফেরদৌস ও দ্বিতীয়বার তদন্ত করেন একজন যুগ্মসচিব।

Please follow and like us:
Tweet 20

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Social media & sharing icons powered by UltimatelySocial
error

Enjoy this blog? Please spread the word :)