দেবহাটায় গ্রামপুলিশ সহ ৫ জনকে জখমের ঘটনায় মামলা

দেবহাটা

দেবহাটার মোহাম্মাদালীপুরে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে গ্রাম পুলিশ সহ ৫ জনকে পিটিয়ে রক্তাক্ত জখমের ঘটনায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। সোমবার দুপুরে আহতদের অন্যতম ও সখিপুর ইউনিয়ন পরিষদের ৭ নং ওয়ার্ডের দায়িত্বরত গ্রাম পুলিশ আবুল হোসেন বাদী হয়ে দেবহাটা থানায় মামলাটি (নং-০৭) দায়ের করেন।

এরআগে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে গত শনিবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে উপজেলার মোহাম্মাদালীপুর গ্রামে ওই হামলা ও মারপিটের ঘটনাটি ঘটে।

এলাকাবাসী জানান, আহত গ্রাম পুলিশ আবুল হোসেনের ছেলে আশারুল ইসলামের সবজি বাগান খেয়ে নষ্ট করে প্রতিবেশী আব্দুল মাজেদের ছাগল। তারা ঐ ছাগলটি বেধে রাখলে রাতে পতিবেশী আব্দুল মাজেদ ও তার পরিবারের সদস্যরা ছাগলটি ছাড়িয়ে নিতে আসে। এসময় তাদের ছাগলটি ফেরত দিয়ে দেয়া হলেও আব্দুল মাজেদের পরিবার গ্রামপুলিশ আবুল হোসেন, তার ছেলে আশারুলসহ পরিবারের লোকজনদের অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ ও হুমকি দিতে থাকে।

একপর্যায়ে কথা কাটাকাটির সুত্রপাত হলে আব্দুল মাজেদ বাড়ি থেকে তার ভাই আবু সাঈদ, জাহিদ হোসেন, আব্দুল মালেক, আব্দুস সালেক, সাহেব আলী, সাঈদের স্ত্রী শাহানারা বেগম ও ছেলে শাহিন আলম, মালেকের স্ত্রী ফতেমা খাতুন, মাজেদের ছেলে সাহাজুল ইসলাম, মালেকের ছেলে মুছা করিম, আজিজের ছেলে ইসমাইলসহ পরিবারের আরো কয়েকজন সদস্যকে নিয়ে গ্রামপুলিশ আবুল হোসেন, তার ছেলে আশারুল, ছেলের স্ত্রী আছিয়া বেগম, পৌত্র নাইমুর রহমান ও ভাইজি রোজিনা খাতুনের উপর অতির্কিত হামলা চালায়।

সেসময়ে হামলাকারীরা লাঠিশোঠা ও ইটের আঘাত করে গ্রামপুলিশের পরিবারের সদস্যদের রক্তাক্ত জখম করে। পরে স্থানীয়রা তাদেরকে গুরুতর আহত অবস্থায় উদ্ধার করে দেবহাটা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন।

স্থানীয়রা আরোও জানান, হামলাকারী আব্দুল মাজেদরা দশ ভাই। ফলে স্ত্রী সন্তান ও আত্মীয় সজন মিলিয়ে চকমোহামাদালীপুর গ্রামে সবচেয়ে বড় ও হিংস্র পরিবার তাদের।

যেকোন সময়ে তুচ্ছ ঘটনা নিয়ে এলাকার নীরিহ মানুষের ওপর হামলা ও মারপিট করে তারা। তাদের বিরুদ্ধে কেউ কথা বলার সাহস পেয়ে ওঠেনা। এক কথায় গোটা এলাকাবাসী একদিকে এবং হামলাকারী মাজেদের পরিবার আরেকদিকে হওয়া স্বত্বেও এলাকার সব মানুষ যেন তাদের কাছে জিম্মি। এরআগেও এলাকার বহু নীরিহ মানুষ ওই পরিবারের কাছে নির্যাতিত এবং হামলা ও মারপিটের শিকার হয়ে নীরবে দিন কাটাচ্ছেন।

বিগত কয়েক বছরে ওই মাজেদ আলী ও তার ভাইদের হাতে নির্মম নির্যাতনের শিকার কোড়া গ্রামের নেছার আলীর ছেলে সেলিম হোসেন, মোহাম্মাদালীপুর গ্রামের নওয়াব আলীর ছেলে কওছার আলী, একই গ্রামের বরকতউল্লার ছেলে আজগর আলী, নুর ইসলামের ছেলে জাফর হোসেনসহ ডজনখানেক পরিবার। শুধু তাই নয়, প্রায় বছর খানেক আগে কোড়া সরকার বাড়ীর সংখ্যালঘু পরিবারের ওপরেও হামলা চালায় মাজেদের পরিবার। তাছাড়া রাস্তা সংষ্কারে স্বপ্ন প্রকল্পের একটি কাজ চলাকালে প্রকল্পের নারী কর্মীদের ওপরেও চড়াও হয় মাজেদের জামাতা শাহাবুদ্দীন। সেসময়ে বাঁধা দিতে গেলে স্থানীয় ইউপি সদস্য আবুল হোসেনও মাজেদ গংয়ের হাতে লাঞ্চিত হন।

মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করে দেবহাটা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) বিপ্লব কুমার সাহা জানান, গ্রাম পুলিশ সহ তার পরিবারের সদস্য আহতের জখমের বিষয়ে মামলা রূজু করা হয়েছে। মামলার আসামীদের গ্রেপ্তারে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

Please follow and like us:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *