যুক্তরাষ্ট্রে করোনায় একদিনেই ২ হাজার প্রাণহানি

আন্তর্জাতিক করোনাভাইরাস

বিশ্বের প্রবল শক্তিধর দেশের প্রেসিডেন্ট হয়েও অসহায়ভাবে মৃত্যুর মিছিল চোখের সামনে দেখা যে কত যন্ত্রণার ডোনাল্ড ট্রাম্প তা হাড়ে হাড়ে টের পাচ্ছেন। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে প্রায় ২ হাজার প্রাণ কেড়ে নিয়েছে করোনা। প্রকৃত সংখ্যাটা এক হাজার ৯৬৬।

সংখ্যাটা কোথায় গিয়ে থামবে, মার্কিন প্রেসিডেন্ট নিজেও তা জানেন না। তবে সংখ্যাটা যে দুই লাখে গিয়ে ঠেকবে তা আগাম জানিয়ে মার্কিন প্রেসিডেন্টকে মানসিকভাবে প্রস্তুত থাকতে বলেছেন বিশেষজ্ঞরা।

জনস হপকিন্স ট্র্যাকার জানাচ্ছে, বুধবার ভোর পর্যন্ত আমেরিকায় মৃত্যু হয়েছে ১২ হাজার ৮৫৪ জনের। গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে করোনা পজিটিভ ধরা পড়েছে ৩৩ হাজার ৩১৯ জনের। করোনায় আক্রান্তের দিক থেকে বিশ্বে সবার শীর্ষে থাকা যুক্তরাষ্ট্রে বর্তমানে ৪ লাখ ৪১২ জন আক্রান্ত হয়েছে। এর মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ১২ হাজার ৮৫৪ জনের। এর মধ্যে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ২১ হাজার ৬৭৪ জন। আক্রান্তদের মধ্যে অত্যন্ত সঙ্কটজনক অবস্থায় রয়েছেন ৯ হাজার ১৬৯ জন।

বৈশ্বিক মহামারি করোনাভাইরাসে বিশ্বজুড়ে মৃতের সংখ্যা বেড়েই চলেছে। সঙ্গে বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যাও। আন্তর্জাতিক জরিপ পর্যালোচনাকারী সংস্থা ওয়ার্ল্ডোমিটারের তথ্যানুযায়ী এখন পর্যন্ত বিশ্বে ৮২ হাজার ৭৮ জন এ ভাইরাসে প্রাণ হারিয়েছেন। এছাড়া আক্রান্ত হয়েছেন ১৪ লাখ ৩১ হাজার ৬৯১ জন।

গত বছরের শেষ দিকে চীনে মহামারি এই ভাইরাসটির প্রাদুর্ভাব শুরু হলেও এতে সবচেয়ে বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছে ইতালিতে। দেশটিতে এখন পর্যন্ত ১৭ হাজারে বেশি মানুষ মারা গেছেন, আর আক্রান্ত হয়েছে ১ লাখ ৩৫ হাজারের বেশি মানুষ।

মৃত্যুতে ইতালির পরই রয়েছে স্পেনের অবস্থান। দেশটিতে এখন পর্যন্ত ১৪ হাজার ৪৫ জন মারা গেছে, আর আক্রান্ত হয়েছে ১ লাখ ৪১ হাজার ৯৪২ জন।

করোনার উৎপত্তিস্থল চীনে আক্রান্ত হয়েছেন ৮১ হাজার ৮০২ জন, মারা গেছে ৩ হাজার ৩৩৩ জন।

ইউরোপের আরেক দেশ ফ্রান্সে ভয়াবহ আকার ধারণ করছে করোনা। দেশটিতে এ পর্যন্ত এক লাখ ৯ হাজার ৬৯ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছে। মৃত্যু হয়েছে ১০ হাজার ৩২৮ জনের।

এছাড়া জার্মানিতেও প্রতিদিন বাড়ছে আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা। দেশটিতে এখন পর্যন্ত আক্রান্তের সংখ্যা ১ লাখ ৭ হাজার ৬৬৩ জন, আর মৃত্যু হয়েছে ২ হাজার ১৬ জনের।

করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে ইউরোপের প্রায় সব দেশ লকডাউন। যুক্তরাষ্ট্রের অর্ধেকের বেশি মানুষ ঘরবন্দী। এ রকম লকডাউন চলছে এশিয়া ও আফ্রিকাসহ অন্যান্য মহাদেশেও।

মধ্যপ্রাচ্যের ইরানে এখন পর্যন্ত ৬২ হাজার ৫৮৯ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছে। মারা গেছে ৩ হাজার ৮৭২ জন।

ভারতে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ৫ হাজার ৩৫১ জনে দাঁড়িয়েছে, মারা গেছে ১৬০ জন। পাকিস্তানে মৃতের সংখ্যা ৫৭ জন, আক্রান্ত ৪ হাজার ৩৫ জন।

এদিকে বাংলাদেশে নতুন করে আরো ৪১ জন কোভিড-১৯ রোগী শনাক্ত হওয়ায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৬৪ জনে, এর মধ্যে ১৭ জন মারা গেছে। সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছে ৩৩ জন।

Please follow and like us:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *