তালায় হোম কোয়ারেন্টিনে ১২৩ জন: সরকারিভাবে নেই কোন সহযোগিতা

তালা সাতক্ষীরা

সাতক্ষীরার তালায় মহামারি করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ, জনসচেতনতা সৃষ্টি, সন্দেহভাজনদের হোম কোয়ারেন্টিন নিশ্চিত করা ও চিকিৎসকদের দক্ষতা সৃষ্টিসহ চিকিৎসকদের স্বাস্থ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে উত্তরণ এর উদ্যোগে নানান কর্ম পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে। সরকারের সহযোগিতার অংশ হিসেবে তালার বেসরকারি সংস্থা উত্তরণ এর উদ্যোগে ইতোমধ্যে করোনা প্রতিরোধে সচেতনতামূলক জরুরী স্বাস্থ্য বার্তা এবং স্বাস্থ্য উপকরণ বিতরণ করা হয়েছে।

সূত্রে জানাগেছে, তালা উপজেলায় করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে ব্যপক প্রচারণা ও পদক্ষেপ নেয়া হচ্ছে। সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক এস. এম. মোস্তফা কামাল’র নির্দেশনায় উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. ইকবাল হোসেন প্রতিদিন ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনাসহ করোনা প্রতিরোধে প্রচেষ্টা চালাচ্ছেন।
উপজেলা নির্বাহী অফিস সূত্রে জানাগেছে, করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে রাজস্ব তহবিল থেকে লাল নিশানা কাপড় ১২টি ইউনিয়নে বিতরণ করা হয়েছে। এছাড়া ইউনিয়ন ও উপজেলা পর্যায়ে কমিটি গঠন করে উপজেলায় একটি সেল গঠন করা হয়েছে। করোনা প্রতিরোধে স্বাস্থ্য সামগ্রী বিতরণ করার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। কিন্তু দিন দিন সারা দেশের ন্যায় তালা উপজেলায় হোম কোয়ারেন্টিন মানুষের সংখ্যা বৃদ্ধি পাওয়ায় সর্বত্র আতংক ছড়িয়ে পড়ছে। করোনা প্রতিরোধে সরকারিভাবে প্রয়োজনীয় উপকরণ না পাওয়াসহ চিকিৎসা সেবা নিয়ে উদ্বিগ্ন রয়েছে তালার মানুষ। দরিদ্র ও ঘনবসতিপূর্ন তালা উপজেলার মানুষদের সুরক্ষায় অতিদ্রুত মাস্ক ও জীবানুনাশক ওষুধসহ প্রয়োজনীয় উপকরণ বিতরণের জন্য সরকারের কাছে দাবী এখানকার মানুষদের।
তালা উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. রাজিব সরদার জানান,  অত্র উপজেলায় হোম কোয়ারেন্টিনে থাকা ব্যক্তিদের সংখ্যা প্রতিনিয়ত বৃদ্ধি পাচ্ছে। সোমবার দুপুর পর্যন্ত তালা উপজেলায় ১২৩জন ব্যক্তিকে হোম কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছে। আগামীতে এসংখ্যা আরো বৃদ্ধির আশংকা করে তিনি বলেন, করোনা ভাইরাস আক্রান্তদের চিকিৎসার জন্য ইতোমধ্যে ডাক্তারদের প্রশিক্ষণ করানো হয়েছে। এছাড়া সকল কমিউনিটি ক্লিনিকসহ হাসপাতালে বিশেষ ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।
ডা. রাজিব সরদার বলেন, করোনা আশংকায় হাসপাতালের পরিবেশগত উন্নয়ন, ডাক্তারদের স্বাস্থ্যগত নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণ এবং জনসাধারনের স্বাস্থ্য নিরপাত্তার জন্য বে-সরকারি সংস্থা উত্তরণ এর পক্ষ থেকে বিশেষ গাউন, হ্যান্ড গ্লোবস, হ্যান্ড স্যানিটাইজার ও মাস্কসহ নানান উপকরণ পাওয়া গেছে।
এবিষয়ে বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা উত্তরণ এর পরিচালক শহিদুল ইসলাম বলেন, তালা সহ সাতক্ষীরা জেলায় করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে সংস্থার পক্ষ থেকে একাধিক উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। এজন্য প্রশাসন ও স্বাস্থ্য কর্মীদের সাথে সমন্বয় করে তালা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স’র ডাক্তারদের নিরাপত্তা ও করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে বিভিন্ন উপকরণ বিতরণ করা হয়েছে। আর অতিদ্রুত তালা, পাটকেলঘাটা ও কলারোয়া উপজেলার ৩ থানার পুলিশ সদস্যদের মাঝে “ব্যক্তিগত সুরক্ষা উপকরণ” বিতরণসহ জেলার ৭ উপজেলায় সাড়ে ৪ লাখ পরিবারের মাঝে জরুরী স্বাস্থ্য বার্তা এবং হোম কোয়ারেন্টিনে থাকা ব্যক্তিদের জন্য করণীয় বিষয়ে লিফলেট, পুস্তক ও প্রয়োজনীয় স্বাস্থ্য উপকরণ বিতরণ করা হবে। এছাড়া পর্যায়ক্রমে খুলনা ও সাতক্ষীরার কয়েকটি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এবং থানায় অনুরুপভাবে উপকরণ বিতরণ করা হবে।
তিনি বলেন, দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলে এই মূহুর্তে যে অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে তা মোকাবেলা করা কঠিন। এভাবে চলতে থাকলে দেশ ভয়াবহ সংকটাপন্ন পর্যায়ে পৌঁছবে। এজন্য, সরকারের পাশাপাশি সকল এনজিও এবং ধনাঢ্য ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানকে এগিয়ে আসার জন্য তিনি আহবান জানান।
Please follow and like us:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *