আদর্শ ও দুর্নীতিমুক্ত সবুজ সাতক্ষীরা গড়ে তোলা হবে : জেলা প্রশাসক মোস্তফা কামাল

মুজিববর্ষের আগেই দুর্নীতিমুক্ত সবুজ সাতক্ষীরা গড়ে তুলতে হবে। একই সাথে হয়রানিমুক্ত পুলিশি সেবা নিশ্চিত করে সাতক্ষীরার শিক্ষার হার বাড়াতে হবে। বিশেষ করে নারী শিক্ষার হার বৃদ্ধি করতে হবে। গতানুগতিক শিক্ষা পরিহার করে কারিগরি শিক্ষার উপর জোর দিলে বেকারত্ব দূর করা সম্ভব হবে। জনগণ সেবার জন্য দপ্তরে দপ্তরে ধর্না দেবে না। সেবা জনগণের দোরগোড়ায় পৌঁছে দেওয়ার উদ্যোগ নিতে হবে। এতে মুজিব বর্ষে সাতক্ষীরা একটি মডেল জেলা হিসেবে স্মরণীয় হয়ে থাকবে।

বুধবার বিকালে সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত ‘মুজিব বর্ষে তারুণ্যের ভাবনা’ শীর্ষক সংলাপে অংশ নিয়ে শিক্ষার্থীরা এভাবেই তাদের চিন্তা-ভাবনা তুলে ধরেন। জেলা প্রশাসক এসএম মোস্তফা কামাল নিজেই এই সংলাপ সঞ্চালনা করেন।

সংলাপে মুজিব বর্ষ নিয়ে শিক্ষার্থীদের ভাবনা শুনে অভিভূত জেলা প্রশাসক এসএম মোস্তফা কামাল বলেন, বাল্য বিবাহ প্রতিরোধ, সন্ত্রাস ও মাদক নির্মূলে সরকার জিরো টলারেন্স নিয়ে কাজ করছে। ইতোমধ্যে দুর্নীতিমুক্ত সাতক্ষীরা গড়ে তোলার লক্ষ্যে জেলা প্রশাসকের কার্যালয় থেকে ইউনিয়ন ভূমি অফিস পর্যন্ত দুর্নীতিমুক্ত ঘোষণা করা হয়েছে। কোন অফিসে যদি কেউ দুর্নীতি বা হয়রানির শিকার হয়, সাধারণ মানুষের সাথে যদি কোন কর্মকর্তা অসদাচরণ করে তাহলে তার বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। সকলের প্রচেষ্টায় একটি আদর্শ দুর্নীতিমুক্ত সবুজ সাতক্ষীরা গড়ে তোলা হবে।

জেলা প্রশাসক আরও বলেন, পাসপোর্ট ও বিআরটিএ অফিস থেকে মানুষ সরাসরি সেবা নেয়। ইতোমধ্যে এই দুটি অফিসকে সতর্ক করা হয়েছে। নিয়মিত ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান চালানো হচ্ছে। অবৈধ ইটভাটা মালিকদের সতর্ক করা হয়েছে। যাদের ভাটার লাইসেন্স নেই, পরিবেশ দূষণ করছে তাদের তিনদিনের মধ্যে ভাটা অপসারণ করে নিতে বলা হয়েছে। না করলে ভ্রাম্যমাণ আদালত দিয়ে গুড়িয়ে দেওয়া হবে। যারা উন্নয়নে বাধা হবে, দুর্নীতিতে যুক্ত হবে, তাদের সমূলে উৎপাটন করা হবে।

এসএম মোস্তফা কামাল বলেন, বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ঘোষিত ২০১৪ সালের মধ্যে সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গঠনে তোমাদেরই (শিক্ষার্থী) মুখ্য ভূমিকা পালন করতে হবে। তোমরাই আগামী দিনে নেতৃত্ব দেবে। তোমাদের বঙ্গবন্ধুর আদর্শে গড়ে উঠতে হবে।

সংলাপে এক শিক্ষার্থী বলে, বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমাদের লাইট হাউজ। তাদের অনুকরণ করে এগিয়ে যেতে হবে। এমন সংলাপের আয়োজনে জেলা প্রশাসককে ধন্যবাদ জানায় শিক্ষার্থীরা। জেলা প্রশাসন আয়োজিত এই সংলাপে অংশ নিয়েছিল সদর উপজেলার ঝাউডাঙ্গা কলেজের শিক্ষার্থীরা।

এসময় নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আজহার আলী ও জুবায়ের হোসেন এবং ঝাউডাঙ্গা কলেজের শিক্ষকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। সংলাপে জেলা প্রশাসক এসএম মোস্তফা কামাল প্রতি বুধবার বিকালে শিক্ষার্থীদের নিয়ে নিয়মিত সংলাপ আয়োজনের ঘোষণা দেন।

Please follow and like us:
Tweet 20

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Social media & sharing icons powered by UltimatelySocial
error

Enjoy this blog? Please spread the word :)