ভারত-ওয়েস্ট মুখোমুখি আজ

খেলাধুলা

নিউজিল্যান্ডের কাছে হারের পরই কার্যত সেমিফাইনালের লড়াই থেকে ছিটকে পড়েছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। ছয় ম্যাচে একটি জয়, চারটি হার ও একটিতে পয়েন্ট ভাগাভাগি করেছিল ক্যারিবিয়ানরা। তাদের ঝুলিতে এখন ৩ পয়েন্ট। কিউইদের বিরুদ্ধে পরাজয়ের পর উইন্ডিজ অধিনায়ক জ্যাসন হোল্ডার বলেছিলেন, শেষ তিন ম্যাচে মর্যাদা ধরে রাখার জন্য লড়বে তার দল।

আজ ভারতের বিরুদ্ধে উইন্ডিজদের ম্যাচটা তাই অনেকটা আনুষ্ঠানিকতার মতো। যেখানে ওয়েস্ট ইন্ডিজের জয় টুর্নামেন্টের সমীকরণে বড় কোনো প্রভাব ফেলবে না। তবে আজ জিতলে সেমির পথে কয়েকধাপ এগিয়ে যাবে ভারত। পাঁচ ম্যাচে তাদের পয়েন্ট ৯। ম্যানচেস্টারে ভারত-ওয়েস্ট ইন্ডিজ ম্যাচটা আজ বিকেল সাড়ে ৩টায় শুরু হবে।

তবে ম্যাচের প্রস্তুতিতে আজ বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছিল বৃষ্টি। প্রকৃতির বৈরীতার কারণে ইনডোরেই নিজেদের অনুশীলন সারতে হয়েছে বিরাট কোহলিদের। গত সোমবার থেকেই ম্যানচেস্টারে বৃষ্টি হচ্ছে থেমে থেমে। তবে আজ বৃহস্পতিবার বৃষ্টির পূর্বাভাস নেই। তাই পূর্ণ দৈর্ঘ্যের ম্যাচই আশা করা হচ্ছে। গত ১৬ জুন ম্যানচেস্টারেই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী পাকিস্তানকে হারিয়েছিল ভারত।

ম্যানচেস্টারের ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে মধুর স্মৃতি রয়েছে ভারতের। ১৯৮৩ সালে ফেভারিট ক্যারিবিয়ানদের ৩৪ রানে হারিয়েই বিশ্বকাপ শুরু করেছিল কপিল দেবের দল। পরে লর্ডসের ফাইনালেও উইন্ডিজদের হারিয়ে ট্রফি জিতেছিল ভারত।

শক্তিমত্তা, ফর্ম বিবেচনায় হোল্ডারদের চেয়ে অনেক এগিয়ে কোহেলি বাহিনী। তবে ক্যারিবিয়ানদের ক্যালিপসো ছন্দের কোনো নিশ্চয়তা নেই। যে কোনো সময় জ্বলে উঠতে পারে তারা। বিশেষ করে ক্রিস গেইলসহ ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলে এমন কিছু পারফরমার আছেন যারা একাই ম্যাচের গতিপথ বদলে দিতে পারেন। কিন্তু এই বিশ্বকাপে দল হিসেবে জ্বলে উঠতে পারছে না তারা। আবার আজ হোল্ডারদের জন্য বড় ধাক্কা আন্দ্রে রাসেলকে হারানো। হ্যামস্ট্রিংয়ের ইনজুরির কারণে ইতোমধ্যে বিশ্বকাপ থেকে ছিটকে পড়েছেন এই অলরাউন্ডার।

ওল্ড ট্র্যাফোর্ডের উইকেট ব্যাটিং সহায়ক। যেখানে দুই দলের ব্যাটসম্যানরাই সুবিধা পাবে। আগের ম্যাচে আফগানদের বিপক্ষে ব্যাটিংয়ে সংগ্রাম করেছিলেন ধোনি-রোহিত শর্মারা। মিডল অর্ডার নিয়ে বেশি চিন্তায় আছে ভারত। আজ যা দূর হয়ে যেতে পারে। তবে ধোনির ব্যাটের দিকে নজর থাকবে সবার। এমনকি আফগান স্পিনারদের সামলাতে না পারায় ধোনির সমালোচনাও করেছেন ভারতের কিংবদন্তি শচীন টেন্ডুলকার। ওই ম্যাচে ৫২ বলে ২৮ রান করেছিলেন তিনি। মিডল অর্ডার পোক্ত করতে হয়তো ধোনিকে আরও উপরে পাঠানো হতে পারে। যাতে লম্বা সময় ব্যাটিংয়ের সুযোগ পান এই অভিজ্ঞ উইকেটকিপার-ব্যাটসম্যান।

অবশ্য বোলিংয়ে বুমরাহ, শামি, চাহাল, কুলদীপরা ভারতের বড় ভরসা। ভালো ছন্দেও আছেন তারা। গেইল-হেটমায়ারদের আটকে দিতে চাহাল-কুলদীপই ভারতের মূল অস্ত্র। ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলটা অননুমেয়। এটুকু ছাড়া আজকের ম্যাচে ভারত সব বিভাগেই এগিয়ে থাকবে।

Please follow and like us:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *