জীবন্ত তেলাপোকা খেয়ে বিশ্বরেকর্ড

পৃথিবীজুড়ে প্রতিনিয়তই খাবার নিয়ে নানা প্রতিযোগিতা হয়ে থাকে। হরেক রকম খাবার দাবার উদ্ভট পরিমাণে খেয়ে রেকর্ডের পরিমাণও কিন্তু ঢের! আবার কিছু কিছু রেকর্ডকে নেহায়েত মানুষের পাগলামি ছাড়া আর কিছুই বলার উপায় নেই। চলুন আজ ঘুরে আসি সেসব রেকর্ডের দুনিয়া থেকে!

২০০১: কেন এডওয়ার্ডস- এক মিনিটে সবচেয়ে বেশি জীবন্ত তেলাপোকা খাওয়ার রেকর্ড! 
তেলাপোকা খাওয়ার কথা ভাবলেই হয়তো আমাদের অনেকের পাকস্থলী উগড়ে বমি আসবে, জীবন্ত তেলাপোকার কথা তো বলাই বাহুল্য! কিন্তু যুক্তরাজ্যের এডওয়ার্ডস নামের এক ভদ্রলোক ২০০১ সালে সরাসরি টেলিভিশনে প্রচারিত এক অনুষ্ঠানে মাত্র ৬০ সেকেন্ড সময় ৩৬ টি জীবন্ত তেলাপোকা খেয়ে ফেলেছিলেন! তেলাপোকাগুলো ছিলো মাদাগাস্কার হিসিং প্রজাতির তেলাপোকা, যেগুলোর আকার সাধারণ তেলাপোকার চাইতে বেশ বড় হয়  (প্রায় তিন ইঞ্চি)।

২০০২: ডন লারম্যান – ৫ মিনিটে সবচেয়ে বেশি পরিমাণে মাখন খাওয়ার রেকর্ড! 
আমাদের মতো সাধারণ মানুষজন রুটি বা টোস্টের সঙ্গেই মাখন খাওয়ার কথা ভাবতে পারেন। অন্যান্য খাবার কিংবা শুধু অল্প পরিমাণে চেখে দেখাতেও হয়তো কারো আপত্তি থাকবেনা। কিন্তু তাই বলে মাত্র ৫ মিনিটে ২৮ আউন্স মাখন! এমন কাণ্ডই ঘটিয়েছিলেন যুক্তরাষ্ট্রের তরুণ ডন লারম্যান, ২০০২ সালে একটি প্রতিযোগিতায়। ২৮ আউন্স মাখনে রয়েছে ৫ হাজার ৬৯১ ক্যালোরি শক্তি, যা একজন স্বাভাবিক সুস্থ মানুষের দু’দিনের সামগ্রিক চাহিদার সমান!

২০০২: তাকেরু কোবায়াশি- ৫ মিনিটে সবচেয়ে বেশি সংখ্যক গরুর মগজ খাওয়ার রেকর্ড!
গরুর মগজ দিয়ে বিভিন্ন সুস্বাদু রান্নার সঙ্গে আমরা হয়তো পরিচিত। কিন্তু মাত্র ৫ মিনিটে ৮ কেজি গরুর মগজ ভোজন! বাড়াবাড়িই বটে! রেকর্ড গড়ার উদ্দেশ্য নিয়েই ২০০২ সালে জাপানের প্রতিযোগিতামূলক খাদক তাকেরু কোবায়াশি ভক্ষণ করেন ৫৭ টি গরুর মগজ, তাও মাত্র ৫ মিনিটে। মগজগুলোর সম্মিলিত ওজন ছিলো ৮ কেজি, যা একটি গাড়ির টায়ারের সমান ওজনের!

২০১৫: কেলভিন মেদিনা- সবচেয়ে দ্রুততম সময়ে একটি ১২ ইঞ্চি পিজা খাওয়ার রেকর্ড!
দুনিয়ায় পিজ্জাভক্তের নিশ্চয় অভাব নেই। দ্রুত পিজা শেষ করা নিয়ে প্রতিযোগিতাও হয় প্রায়ই বন্ধুবান্ধবদের মধ্যে। কিন্তু বিশ্বরেকর্ড গড়তে হলে আপনাকে কত সেকেন্ডের মধ্যে একটি ১২ ইঞ্চি পিজ্জা শেষ করতে হবে জানেন? মাত্র ২৩ সেকেন্ডে। হ্যাঁ, ফিলিপাইনের এ নাগরিক ২০১৫ সালে মাত্র ২৩ দশমিক ৬২ সেকেন্ড সময় নিয়ে একটি ১২ ইঞ্চি পিজ্জা শেষ করে গড়েন বিশ্বরেকর্ড। আগের রেকর্ডটিকে ১৫ সেকেন্ডের ব্যবধানে পেছনে ফেলেন তিনি! পিজ্জাটি খেতে ছুরি ও কাঁটা চামচ ব্যবহার করেছিলেন মেদিনা।

২০১৬: গিডিওন ওজি- ৮ মিনিটে ১১ কেজি বাঁধাকপি! 
এবারের রেকর্ডটি আগেরগুলোর মতো উদ্ভট নয়, বরং বেশ স্বাস্থ্যসম্মত। ২০১৬ সালে আয়োজিত বিশ্ব স্বাস্থ্যকর খাদ্যগ্রহণ প্রতিযোগিতায় মাত্র ৮ মিনিটে ১১ কেজি বাঁধাকপি খেয়ে বিশ্বরেকর্ড করেন যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিক গিডিওন ওজি। এত পরিমাণ বাঁধাকপি গিডিওন কীভাবে হজম করেছিলেন সেটাই ছিলো সকলের প্রশ্ন। উল্লেখ্য , বাঁধাকপি কিন্তু খুব স্বাস্থ্যকর একটি খাবার, এতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে আমিষ, আঁশ, ভিটামিন এ, সি, কে, ফোলেট এবং ওমেগা থ্রি ফ্যাটি এসিডসহ আরো অনেক পুষ্টি উপাদান।

২০১৬: ওলে ঝরনিতস্কী- ৮ মিনিটে সাড়ে তিন কেজি মেয়নেজ!     
ফাস্টফুড প্রেমীদের কাছে মেয়নেজ খুব পছন্দের একটি খাবার, তবে অধিকাংশ সময়েই এটি সসের পরিপূরক হিসেবে ব্যবহৃত হয়। শুধু মেয়নেজ খেয়ে বিশ্বরেকর্ড গড়ার চিন্তা নিতান্ত পাগলামি ছাড়া আর কি হতে পারে বলুন? ২০১৬ সালে মার্কিন নাগরিক ওলে ঝরনিতস্কী মাত্র ৮ মিনিটে ১২৮ আউন্স মেয়নেজ খেয়ে বিশ্বরেকর্ড করেন, যা প্রায় ৮০ টি গলফ বলের সমান ওজনের!

Please follow and like us:
Tweet 20

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Social media & sharing icons powered by UltimatelySocial
error

Enjoy this blog? Please spread the word :)