২টার পর আদালতে যাবেন খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি

0
168
জিয়া অরফানেজ ও জিয়া চ্যারিটেবল দুর্নীতির দুই মামলায় জামিন বাতিল করে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেছেন আদালত।
আদালতে হাজির না হওয়ায় বৃহস্পতিবার (১১ নভেম্বর) দুপুরে বকশীবাজারের আলিয়া মাদরাসা মাঠে স্থাপিত বিশেষ আদালতে ঢাকার ৫নং বিশেষ জজ ড. আখতারুজ্জামান এ গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন।
ড. আখতারুজ্জামানের আদালতে এ দুটি মামলার বিচারকাজ চলছে। বৃহস্পতিবার জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় খালেদা জিয়ার আত্মপক্ষ সমর্থনের অসমাপ্ত বক্তব্য দেয়া এবং জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় সাক্ষীকে পুনরায় জেরা করার জন্য দিন ধার্য ছিল।
বিদ্যুতের দাম বৃদ্ধির প্রতিবাদ ও অবিলম্বে বর্ধিত দাম প্রত্যাহারের দাবিতে বৃহস্পতিবার সকাল ৬টা থেকে বেলা ২টা পর্যন্ত হরতাল পালন করছে সিপিবি-বাসদ ও বাম মোর্চাসহ বাম দলগুলো। ওই হরতালে সমর্থন জানিয়েছে বিএনপি। এই অবস্থায় খালেদা জিয়ার আদালতে যাওয়া নিয়ে অস্পষ্ট তৈরি হয়।
বিএনপি চেয়ারপারসনের আইনজীবী সানাউল্লাহ মিয়া জানিয়েছেন, হরতালের সময় আদালতে যাওয়া হচ্ছে না। পরিস্থিতি বিবেচনা করে ২টার পর বেগম খালেদা জিয়া আদালতে যেতে পারেন।
জিয়া অরফানেজ ট্রাস্টের দুই কোটি ১০ লাখ ৭১ হাজার ৬৭১ টাকা আত্মসাতের অভিযোগে ২০০৮ সালের ৩ জুলাই খালেদা জিয়া ও তার ছেলে তারেক রহমানসহ ছয়জনের বিরুদ্ধে রমনা থানায় মামলাটি দায়ের করা হয়। পরের বছরের ৫ আগস্ট ৬ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দাখিল হয়।
আর জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্টের নামে অবৈধভাবে তিন কোটি ১৫ লাখ ৪৩ হাজার টাকা লেনদেনের অভিযোগ এনে খালেদা জিয়াসহ ৪ জনের বিরুদ্ধে ২০১০ সালের ৮ আগস্ট তেজগাঁও থানায় মামলা করে দুদক। ২০১২ সালের ১৬ জানুয়ারি মামলা তদন্ত কর্মকর্তা দুদকের উপ-পরিচালক হারুন অর রশিদ তাদের চারজনের বিরুদ্ধেই আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন।
এ বিষয়ে চেয়ারপারসনের মিডিয়া উইংয়ের সদস্য শামসুদ্দিন দিদার বলেন, হরতালের কারণে আজ আদালতে হাজিরা দিতে যান নি খালেদা জিয়া। এ কারণে আদালত তার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেছেন। তবে দুপুর ২টার পর হরতাল শেষ হলে আদালতে যাবেন বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া।
উল্লেখ্য, এরআগেও বিভিন্ন মামলায় বেশ কয়েকবার তার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেছিল আদালত।