‘হয় সাংবাদিকতা না হয় তথ্য উপদেষ্টার পদ ছাড়ুন’

0
124

অনলাইন ডেস্ক :

সরকারদলীয় সংসদ সদস্য নিজাম উদ্দিন হাজারী প্রধানমন্ত্রীর তথ্য উপদেষ্টা সাংবাদিক ইকবাল সোবহান চৌধুরীকে স্বাধীনতাবিরোধী ও ষড়যন্ত্রকারী উল্লেখ করে বলেছেন, ‘১৯৭১ সালে সবাই যখন যুদ্ধ করেছেন, তখন তিনি পাকিস্তান অবজারভারে চাকরি করেছেন। তিনি ১৯৭২ সালে সাংবাদিকতা শুরু করেছেন, এটা সঠিক নয়। মূলত তিনি ১৯৭১ সাল থেকেই (পাকিস্তান অবজারভার) সাংবাদিকতা শুরু করেন। তিনি যে বেতন পেয়েছেন তার ব্যাংক স্টেটমেন্ট আমার কাছে আছে।’ সোমবার রাতে জাতীয় সংসদে রাষ্ট্রপতির ভাষণের ওপর আনীত ধন্যবাদ বক্তব্যে নিজাম হাজারী এসব কথা বলেন। এ সময় ডেপুটি স্পিকার ফজলে রাব্বী মিয়া সংসদের অধিবেশনে সভাপতিত্ব করছিলেন। সম্প্রতি প্রধানমন্ত্রীর তথ্য উপদেষ্টা ইকবাল সোবহান চৌধুরী সম্পাদিত ইংরেজি দৈনিক অবজারভারে নিজাম হাজারীসহ চারজন সরকারদলীয় সংসদ সদস্যকে অস্ত্র ও মাদকের গডফাদার হিসেবে সংবাদ প্রকাশ করা হয়। এ ঘটনায় ইকবাল সোবহান চৌধুরীর বিরুদ্ধে ঢাকা ও ফেনীতে কয়েকটি মামলাও করেছেন নিজাম হাজারী ও রাজশাহী থেকে নির্বাচিত আরেক সংসদ সদস্য এনামুল হক।

এ সময় ইকবাল সোবহান চৌধুরীকে উদ্দেশ্য করে ফেনী-২ আসন থেকে নির্বাচিত এই সংসদ সদস্য বলেছেন, ‘তাকে পত্রিকা-টিভি চ্যানেল দেয়া হয়েছে। আপনি (তথ্য উপদেষ্টা) হয় সাংবাদিকতা ছাড়ুন, না হয় তথ্য উপদেষ্টার পদ ছাড়ুন। দুটি একসঙ্গে করতে পারেন না।’ ইকবাল সোবহান চৌধুরীকে ষড়যন্ত্রকারী উল্লেখ করে সরকারদলীয় এই সংসদ সদস্য বলেন, ‘২০০৮ সালে সারাদেশে যখন আওয়ামী লীগ ও নৌকার গণজোয়ার হয় তখন ইকবাল সোবহান চৌধুরী ফেনী থেকে নির্বাচন করে হেরে যান।’কয়েকদিন আগে সংসদে দেয়া শামীম ওসমানের বক্তব্য সমর্থন করে তিনি বলেন, ‘উনি (ইকবাল সোবহান চৌধুরী) গোলাম আযমের নাগরিকত্ব দাবি করেছিলেন।’ অবজারভারের সংবাদ প্রসঙ্গে নিজাম হাজারী বলেন, ‘তিনি যদি প্রমাণ দিতে পারেন (অস্ত্র ও মাদকের গডফাদার) তাহলে এখান থেকে (জাতীয় সংসদ) জুতার মালা পরে বিদায় নেবো।’

এস এম পলাশ