হাজরে আসওয়াদ চুম্বনের ফজিলত

0
26

অনলাইন ডেস্ক:

পবিত্র কাবা শরিফের দক্ষিণ-পূর্ব কোনায় প্রিয়নবি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের স্বহস্তে স্থাপিত পাথর হলো হাজরে আসওয়াদ। যা মূলত ছিল সাদা। মানুষের গোনাহের কারণে তা কালো বর্ণ ধারণ করে। আর এ পাথরই বিশ্বব্যাপী ‘হাজরে আসওয়াদ’ নামে পরিচিত। প্রিয়নবি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম হাজরে আসওয়াদকে চুম্বন করেছেন। এ পাথরকে চুম্বনের ফজিলত বর্ণনা করেছেন। হাদিসে এসেছে-হজরত আবদুল্লাহ ইবনে আব্বাস রাদিয়াল্লাহু আনহু থেকে বর্ণিত তিনি বলেন রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম হাজরে আসওয়াদ সম্পর্কে বলেছেন- ‘আল্লাহর কসম! নিশ্চিত আল্লাহ তাআলা কিয়ামতের দিন এটাকে এমনভাবে ওঠাবেন যে, তখন এটার দুইটি চোখ হবে; যা দিয়ে দেখবে। এবং এর একটি জিহ্বা হবে; যা দিয়ে কথা বলবে। আর যে ব্যক্তি ঈমানের সঙ্গে এটাকে চুম্বন করেছে, তার পক্ষে এটা (হাজরে আসওয়াদ) সাক্ষ্য দেবে। (তিরমিজি, ইবনে মাজাহ, দারেমি)হাজরে আসওয়াদ আল্লাহ তাআলার অনন্য নির্দশনের একটি। প্রিয়নবি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামও এ পাথরটিকে চুম্বন করেছিলেন। তাইতো মুসলিম উম্মাহর জন্য এ পাথরটিকে চুম্বন করা সুন্নাত। আর তাওয়াফকালে এ পাথরটিকে চুম্বন বা স্পর্শ সম্ভব না হলে এর দিকে ইশারা করে তাওয়াফ শুরু করাও সুন্নাত।আল্লাহ তাআলা মুসলিম উম্মাহকে গোনাহ মাফের নিয়তে প্রিয়নবি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের অনুকরণে হাজরে আসওয়াদ চুম্বন এবং স্পর্শ করার তাওফিক দান করুন। কিয়ামতের দিন আল্লাহ তাআলা অনন্য নির্দশন হাজরে আসওয়াদের সাক্ষ্য লাভের তাওফিক দান করুন। আমিন।

গাজী ফারহাদ

LEAVE A REPLY