স্বাস্থ্যবীমা করমুক্ত হচ্ছে

1
156

অনলাইন ডেস্ক :

স্বাস্থ্যবীমা করমুক্ত হচ্ছে বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। রোববার সচিবালয়ে বাংলাদেশ ইন্সুরেন্স অ্যাসোসিয়েশনের (বিআইএ) এক প্রতিনিধিদলের বৈঠকে অর্থমন্ত্রী একথা জানান। এসময় দেশের বীমা খাতে বিদ্যমান বিভিন্ন অবস্থা তুলে ধরেন প্রতিনিধিদল।  বৈঠকে প্রতিনিধিদল আগামী অর্থবছরের বাজেটে বীমা খাতে বিদ্যমান পরিস্থিতি সমাধানে বেশকিছু সুপারিশ তুলে ধরেন। সেইসঙ্গে ক্ষুদ্রঋণ দান সংস্থা কর্তৃক বিভিন্ন নামে বীমা কার্যক্রম বাস্তবায়ন করছে বলে অভিযোগ করা হয়।

প্রতিনিধিদলের এ অভিযোগের প্রেক্ষিতে আবুল মাল আবদুল মুহিত বলেন, ক্ষুদ্রঋণ সংস্থাগুলো এখন থেকে আর কোনো ধরনের বীমা প্রকল্প বাস্তবায়ন করতে পারবে না। ক্ষুদ্রঋণ সংস্থাগুলোর বীমা ব্যবস্থা পরিচালনা করার কোনো অধিকার নেই। তারা যদি এমন কর্মসূচি বাস্তবায়ন করে তা বন্ধ করা হবে।

বিআইএ’র ভাইস প্রেসিডেন্ট রুবিনা হামিদের নেতৃত্বে প্রতিনিধিদলে মোজাফফর হোসেন পল্টু, নাসির উদ্দিন চৌধুরী, অ্যাডভোকেট আব্দুশ শহীদ এমপি, আফতাবুল ইসলামসহ সংগঠনটির অন্য পরিচালকরা উপস্থিত ছিলেন। বৈঠকে বিআইএ’র পক্ষ থেকে আগামী অর্থবছরের বাজেটে সাত দফা সুপারিশ উপস্থাপন করা হয়।

এসব সুপারিশের মধ্যে রয়েছে- জীবন বীমা পলিসির ডিপোজিট হোল্ডারদের মুনাফার ওপর পাঁচ শতাংশ গেইন ট্যাক্স প্রত্যাহার, বর্তমানে সাধারণ বীমা ও জীবন বীমা কোম্পানির জন্য করপোরেট ট্যাক্স কমানো। বিশেষ করে লিস্টেট বীমা কোম্পানির ক্ষেত্রে ২৫ শতাংশ এবং নন-লিস্টেড বীমা কোম্পানির ক্ষেত্রে ৩৫ শতাংশ করার সুপারিশ করা হয়েছে। এ ছাড়াও বৈঠকে বীমা এজেন্ট কমিশনের বিপরীতে ১৫ শতাংশ উৎসে কর প্রত্যাহার, বীমা কোম্পানির ব্যবস্থাপনা ব্যয় নিয়ে আইনের সংশোধন করার দাবি জানানো হয়েছে।

এক্ষেত্রে বলা হয়েছে, ব্যবস্থাপনা ব্যয় নিয়ে নানা ধরনের জটিলতা সৃষ্টি হয়। আর সে কারণে ওইসব জটিলতা মীমাংসা করতে সংশ্লিষ্ট বীমা কোম্পানিগুলো আইনের আশ্রয় নিলে তা বছরের পর বছর পড়ে থাকে। ফলে সরকার বিপুল পরিমাণ রাজস্ব থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। এ বিধানটি সহজ করা হলে সরকারের রাজস্ব আয় বাড়বে। সংগঠনটির পক্ষ থেকে নবায়ন ফি প্রত্যাহারের দাবি জানানো হয়েছে। বৈঠকে অর্থমন্ত্রী আরও বলেন, করপোরেট ট্যাক্স অন্যান্য আর্থিক প্রতিষ্ঠানের সমপর্যায়ে আনা, বড় বড় কোম্পানিগুলোকে বাধ্যতামূলক বীমার আওতায় আনার বিষয়ে বিবেচনা করা হবে।

এস এম পলাশ