সীমান্ত থেকে মরদেহটি নিয়ে গেছে ভারতীয় পুলিশ

0
384
অনলাইন ডেস্ক :

অবশেষে বেনাপোলে চেকপোস্টের বিপরীতে ভারতের পেট্রাপোল বন্দরের প্রাচীরের কাঁটাতারের উপর দিয়ে বাংলাদেশ সীমান্তের দিকে ফেলা দেয়া মরদেহটি নিয়ে গেছে ভারতীয় পুলিশ। বুধবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে ভারতের দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলার বনগাঁ থানার পুলিশ মরদেহটি নিয়ে যায়। সেখান থেকে ময়নাতদন্তের জন্য বনগাঁ হাসপাতালের মর্গে পাঠায়।

এর আগে বুধবার বেলা ৫টার দিকে বাংলাদেশি কৃষকরা মাঠে ঘাস কাটতে গিয়ে মরদেহটি দেখতে পেয়ে বিজিবি ও পুলিশকে খবর দেয়। কিন্তু মরদেহটি ভারত সীমানায় থাকায় বেনাপোল পোর্ট থানা পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করেনি। পরে বিষয়টি বেনাপোল বিজিবি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানালে তারা ভারতীয় বিএসএফের সঙ্গে আলাপ করলে মরদেহটি ভারতীয় পুলিশ নিয়ে যায়।

ভারতের পাশ থেকে মরদেহটি বাংলাদেশের দিকে ফেলে দেয়ার সময় তার গায়ের শার্ট ভারতের সুসংহত চেকপোস্টের টার্মিনালের সীমানা প্রাচীরের কাঁটাতারের বেড়ায় ঝুলে থাকতে দেখা যায়। বেনাপোল পোর্ট থানা পুলিশ, চেকপোস্ট বিজিবি ও পেট্রাপোল বিএসএফ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে মরদেহটির পরিচয় নিশ্চিত করতে পারেনি।

স্থানীয়দের ধারণা, উদ্ধার হওয়া মরদেহটি কোনো ভারতীয়র। তিনি অবৈধভাবে ভারত থেকে বাংলাদেশে প্রবেশের সময় বিএসএফের হাতে আটক হতে পারে। বিএসএফ সদস্যরা তাকে নির্যাতনের পর হত্যা করে কাঁটাতারের উপর দিয়ে বাংলাদেশের দিকে ফেলে দেয়ার চেষ্টা চালায়। কিন্তু মরদেহটি ভারত সীমানার মধ্যে পড়ে থাকে।

ওই এলাকায় সাধারণ মানুষের চলাচল কম থাকায় মরদেহটি মানুষের চোখে পড়েনি। তবে মরদেহ দেখে ধারণা করা হচ্ছে একদিন আগে তাকে মেরে ফেলে দেয়া হয়েছে।

বেনাপোল চেকপোস্ট বিজিবি ক্যাম্পের নায়েব সুবেদার নজরুল ইসলাম জানান, বিজিবির পক্ষ থেকে মরদেহটি ভারতীয় সীমান্তের অভ্যন্তরে পড়ে থাকার বিষয়টি নিশ্চিত হওয়ার পর বিএসএফকে জানানোর পর তারা বনগাঁ থানায় খবর দেন। পরে ভারতীয় পুলিশ এসে সেখান থেকে মরদেহটি নিয়ে যায়।