সাতক্ষীরা কালেক্টরেট স্কুলে প্রকৃতি ও পুষ্টির গল্পের আসর

0
359

শহর প্রতিনিধি:

থানকুনি আমাশয়ের প্রতিষেধক। তেলাকচু ডায়াবেটিসের মহৌষধ আর কচুর পাতা চোখের জন্য ভাল। এছাড়াও রয়েছে অত্যন্ত পুষ্টিগুণ সমৃদ্ধ ব্রাহ্মি, কলমি, দস্তা কচু, হেলাঞ্চ, সাঞ্চি, বেতশাক, কলার মুচা, ডুমুর, বউটুনি, শাপলা, ঘ্যাটকল, কাটানটি শাক, পেপুলসহ নানা প্রজাতির অচাষকৃত শাক লতা-পাতা। আর এসব শাক লতা-পাতার ওষুধি ও খাদ্যগুণ মুগ্ধ হয়ে শুনছিল শিক্ষার্থীরা। মঙ্গলবার (২৩ মে) বেলা ১২টায় সাতক্ষীরা কালেক্টরেট স্কুল অ্যান্ড কলেজের বার্ষিক ইনস্টিটিউট অব অ্যাপ্লাইড স্টাডিজ (বিয়াস) এবং শিক্ষা, সংস্কৃতি ও বৈচিত্র্য রক্ষা টিম আয়োজিত পুষ্টি ও প্রকৃতির গল্পের আসরে প্রকৃতিতে প্রাপ্ত এসব শাক লতা-পাতার পুষ্টিগুণ তুলে ধরেন পুষ্টির ফেরিওয়ালা খ্যাত যুব উদ্যোক্তা রুহুল কুদ্দুস ও বাবর আলী। এসো প্রকৃতিকে জানি, পুষ্টির গল্প শুনি’ শীর্ষক এই গল্পের আসরে শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে আরও বক্তব্য রাখেন, সাতক্ষীরা কালেক্টরেট স্কুল অ্যান্ড কলেজের একাডেমিক ইনচার্জ রবিউল ইসলাম, সহকারি শিক্ষক রাসেল মাহমুদ, পিয়ারী চরন, মৌসুমী খাতুন, মামুন হাসান, পলাবা সরকার, উজ্জল সরকার, শেখ আরিফুল ইসলাম, ভারতী রানী, শিক্ষা, সংস্কৃতি ও বৈচিত্র্য রক্ষা টিমের সহ-সভাপতি মো. আব্দুল্লাহ ও শামছুন্নাহর মুন্নী, সাধারণ সম্পাদক আসাদুল ইসলাম, আব্দুর রহিম, নূরুল হুদা, সাঈদুর রহমান, ফজলুল হক প্রমুখ।