সাতক্ষীরায় কৃষিবিদ দিবস উপলক্ষ্যে র‌্যালী ও আলোচনা সভা

0
57

মাহফিজুল ইসলাম আককাজ :

‘ বঙ্গবন্ধুর মহান দান, কৃষিবিদ ক্লাস ওয়ান’ এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে সাতক্ষীরায় ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে কৃষিবিদ দিবস ২০১৭ পালিত হয়েছে। সোমবার সকালে কৃষিবিদ ইনষ্টিটিউশন বাংলাদেশ, সাতক্ষীরা জেলা শাখার আয়োজনে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর,খামারবাড়ি হলরুমে কৃষিবিদ ইনষ্টিটিউশন বাংলাদেশ, সাতক্ষীরা জেলা শাখার সভাপতি কৃষিবিদ কাজী আব্দুল মান্নানের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বক্তারা বলেন, দেশ উন্নয়নে কৃষিবিদদের ভূমিকার কথা তুলে ধরে “বঙ্গবন্ধুর মহান দান-কৃষিবিদ ক্লাস ওয়ান” বিষয়ে আলোচনা সভায় বক্তারা উল্লেখ করেন ১৯৭৩ সালের পূর্বে কৃষিতে স্নতক শেষ করে সরকারি চাকুরীতে ২য় শ্রেণির পদায়ন করা হতো। কৃষিবিদদের দাবির প্রেক্ষিতে তৎকালীন রাষ্ট্রপতি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ১৯৭৩ সালের ১৩ ফেব্রুয়ারি কৃষিবিদদের সরকারি চাকুরিতে প্রবেশের সময় প্রথম শ্রেণির কর্মকর্তার পদমর্যাদা দেওয়ার ঘোষনা দেন। ২০১০ সালে কৃষিবিদ ইনষ্টিটিউশন বাংলাদেশ (কেআইবি) এর সাধারণ সভায় প্রতি বছর ১৩ ফেব্রুয়ারি কৃষিবিদ দিবস পালনের সিদ্ধান্ত হয়। ২০১১ সাল থেকে প্রতি বছর কৃষিবিদ ইনষ্টিটিউশন বাংলাদেশ (কেআইবি) এর উদ্যোগে কৃষিবিদ দিবস পালিত হয়ে আসছে। বাংলাদেশ কৃষিপ্রধান দেশ। এ দেশের কৃষ্টি, সংস্কৃতি,অর্থনীতি, রাজনীতির ভিত্তিই হচ্ছে কৃষি। স্বাধীনতা পরবর্তী প্রত্যেকটি সরকারের প্রধান দায়িত্ব ছিল কৃষি উৎপাদন বৃদ্ধির মাধ্যমে খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জন। তাই তো কৃষির গুরুত্ব অনুধাবন করেই কৃষিবিদদের প্রথম শ্রেণির পদমর্যাদায় উন্নীত করেন জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন কৃষিবিদ ইখতেখার হোসেন, ডাঃ নজরুল ইসলাম ও কৃষিবিদ জি.এম.এ গফুর প্রমুখ। পরে শহরের কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর, খামারবাড়ি প্রাঙ্গণ থেকে একটি বর্ণাঢ্য র‌্যালী বের হয়ে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে। কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর, মৎস্য অধিদপ্তর, প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তর, বাংলাদেশ ধান গবেষণা ইনষ্টিটিউট, বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনষ্টিটিউট, বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংক, বিভিন্ন বেসরকারী প্রতিষ্ঠান ও কলেজে কর্মরত ৩০ জন কৃষিবিদ অংশগ্রহণ করে।

LEAVE A REPLY