সাতক্ষীরায় আওয়ামীলীগ নেতা কতৃক পানি উন্নয়ন বোর্ডের জমি দখল

0
663

জাহিদ হোসাইন :

ক্ষমতার দাপটে কোন নিয়মনীতিকে তোয়াক্কা না করে ক্ষমতাশীল দলের এক নেতার নেতৃত্বে জামায়াত সমর্থকদের নিয়ে সাতক্ষীরায় পানি উন্নয়ন বোর্ডের জমি দখল করে পাকা স্থাপনা নির্মাণ করছে। স্থাপনা নির্মাণকারীরা প্রভাবশালী ও ক্ষমতাশীল দলের লোকের ছত্রছায়ায় থাকার কারণে ভয়ে তাদের বিরুদ্ধে কেউ মুখ খুলতে সাহস পাচ্ছে না। তবে রহস্য জনকভাবে নিরব রয়েছে পানি উন্নয়ন বোর্ড(ওয়াপদা) এর কর্মকর্তারা। এলাকাবাসী জানান, সাতক্ষীরা সদরের শিবপুর ইউনিয়নের পরানদাহ বাজারের দক্ষিণ পাশে পানি উন্নয়ন বোর্ডের নিয়ন্ত্রণাধীন সরকারি “আবাদানী” খাল দখল করে পাকা স্থাপনা নির্মাণ করছে পরানদাহ গ্রামের ফজর আলীর ছেলে শিবপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আজিবার রহমানের নেতৃত্বে আব্দুর রাজ্জাকের ছেলে ইনছার আলী, রেজাউলের ছেলে নাজমুল, করিম মোড়লের ছেলে মোশাররফ, কাচার ছেলে শরিফ, রুহুলামিনের ছেলে ইবাদুল, নেবাখালী গ্রামের কাশেমের ছেলে হাশেম ও শ্যামালী সরদারের ছেলে মুস্তান। এলাকাবাসী আরো জানান, “ এভাবে খাল দখল করে পাকা স্থাপনা নির্মাণ করা হলে বর্ষায় পানির স্বাভাবিক স্রোত বিঘ্নিত হবে। ফলে বর্ষার মৌসুমে আমাদের মাঠের ফসলি জমি ও মাছের ঘের প্লাবিত হবে। শিবপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আজিবার রহমান বলেন, “ কয়েকজন সাংবাদিক, পানি উন্নয়ন বোর্ডের অফিসার, ভূমি অফিসের নায়েবসহ আওয়ামীলীগের লিডাররাও এখানে এসে দেখে গেছেন। তারা বলেছে, “কোন সমস্যা নেই”। তাদেরকে বলে সবকিছু ওকে করেছি”। অপর একটি প্রশ্নের জবাবে তিনি আরো বলেন, “আমরা সকল কাগজপত্র ঠিক করেই স্থাপনা নির্মাণ করছি। আমরা পানি উন্নয়ন বোর্ডের কাছ থেকে ডিসি আর নেওয়ার জন্য আবেদন করেছি। তবে এখনও তারা আমাদের ডি সি আর দেয়নি। তবে ডি সি আর দেবে বলে আশ্বস্থ করেছে”। নাম প্রকাশ না করার শর্তে পরাণদাহ বাজার কমিটির একজন সদস্য বলেন, “মাস তিনিক আগে দোকান ঘর নির্মাণের কাজ শুরু হয়েছে । এব্যাপারে আমাদের কে দোকান ঘর নির্মাণ সংক্রান্ত বিষয়ে কেও কিছুই জানিনা। যারা নির্মাণ করছে তারা ক্ষমতাশীন দলের লোক । তাদের বিরুদ্ধে কথা বললে তারা আমাদের বিভিন্নভাবে ক্ষতি করবে। প্রশাসন কার্যকরী পদক্ষেপ গ্রহণ করলে আমরা বাজার কমিটির পক্ষ হতে সার্বিক সহযোগিতা করবো”। আওয়ামীলীগের নেতাদের নাম ভাঙিয়ে ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ নেতা সরকারি জমি দখলের মহাউৎসবে মেতে উঠলেও এ বিষয়ে কিছুই জানেননা শিবপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি শওকাত আলী। তিনি বলেন, ’এ বিষয়ে আমি কিছুই জানিনা, যাদের নাম বলা হচ্ছে তারা সবাই জামায়াতের রাজনীতির সাথে জড়িত’। পানি উন্নয়ণ বোর্ড(ওয়াপদা) এর এস.ও সাইদুজ্জামান বলেন, “স্থাপনা অপসারণের জন্য তাদেরকে ৯ এপ্রিল পর্যন্ত সময় দেওয়া হয়েছে। ওই সময়ের মধ্যে যদি স্থাপনা অপসারণ না করে তবে স্থাপনা নির্মাণকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে”।

 

LEAVE A REPLY