সাতক্ষীরার মানবাধিকার পরিস্থিতির বর্তমান অবস্থা ও করণীয় বিষয়ে উত্তরণের সংবাদ সম্মেলন

0
195

প্রেস রিলিজ :
২০১৬ সালে সাতক্ষীরা জেলায় অন্তত ৯৯টি নারী নির্যাতন, সাতটি অপহরণ, ১০টি ধর্ষণ প্রচেষ্টা, ১৯টি ধর্ষণ, ১০টি যৌন নির্যাতন এবং ৩৯টি নারী ও শিশু পাচারের ঘটনা ঘটেছে। একই সময়ে জেলার আটটি থানায় যৌতুক ও নারী নির্যাতনের ঘটনায় ৩০৬টি এবং ধর্ষণের ঘটনায় ৩৬টি মামলা রেকর্ড হয়।  শুক্রবার বেলা ১২ টায় সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে ‘জেলার মানবাধিকার পরিস্থিতির বর্তমান অবস্থা ও করণীয়’ শীর্ষক সংবাদ সম্মেলনে বেসরকারি সংস্থা উত্তরণ এই তথ্য উপস্থাপন করে। এ সময় লিখিত বক্তব্য উপস্থাপন করেন সংস্থার আইন বিষয়ক কর্মকর্তা এড. মুহা. মুনিরুদ্দীন। সংবাদ সম্মেলনে সংস্থার কয়েকজন কর্মকর্তা ও সিনিয়র সাংবাদিকরা উপস্থিত ছিলেন।
সংবাদ সম্মেলনে কয়েকটি ধর্ষণ ও নির্যাতনের উপমা দিয়ে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করে বলা হয় জেলার শ্যামনগর উপজেলার কাশিপুর, কালিঞ্চি ও শ্রীফলকাটিসহ বিভিন্ন এলাকার আদিবাসী মুন্ডা সম্প্রদায়ের জমি দখলে মরিয়া হয়ে উঠেছে স্থানীয় প্রভাবশালীরা। কয়েক বছর ধরেই তারা প্রতিনিয়ত হুমকির শিকার হচ্ছেন। একই সাথে জমি রক্ষায় মামলার ঘানি টানতে হচ্ছে বছরের পর বছর। বর্ণ বৈষম্যের কারণে তালা উপজেলার মুবারকপুরের আরতি রাণী দাশ ও সুনীল দাশের মতো অনেককে ছাড়তে হয়েছে ভিটিবাড়ি। এমতাবস্থায় সংস্থাটি ৯৮টি মামলায় ১২৮জনকে আইনি সহায়তা দিয়েছে। জেলা কারাগারের ৬০জন আসামিকে আইনী সহায়তা দিয়েছে। ১৮জন আরপি আসামিকে মুক্ত করেছে সংস্থাটি।
সংবাদ সম্মলনে সংস্থার পক্ষ থেকে মানবাধিকার রক্ষায় নারীদের আর্থিকভাবে স্বাবলম্বী করে গড়ে তোলা, মানবাধিকার লঙ্ঘনজনিত ঘটনার দ্রুত বিচারের ব্যবস্থা করা, সামাজিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করে বাল্যবিবাহ শূন্যে নামানোসহ বিদ্যমান আইন কার্যকরের দাবি জানানো হয়।

এস এম পলাশ