শ্যামনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ও এসআই এর নামে চাঁদা আদায়ের অভিযোগ আদালতে মামলা

445
2216

স্টাফ রিপোর্টার:

রাস্তা থেকে তুলে এনে এক যুবককে থানায় আটক রেখে নির্যাতন চালিয়ে ৪৮ হাজার টাকা চাঁদা আদায় ও তাকে অমানুষিক নির্যাতনের অভিযোগে মামলা দায়ের করা হয়েছে। সাতক্ষীরার শ্যামনগর উপজেলার পশ্চিম বিড়ালক্ষী গ্রামের শাহাদাৎ হোসেন মোল্লার ছেলে মোঃ কবির হোসেন সবুজ বাদি হয়ে সাতক্ষীরার অতিরিক্ত মুখ্য বিচারিক হাকিমের আদালতে এ মামলা দায়ের করেন। মামলায় শ্যামনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সৈয়দ মান্নান আলী ও উপপরিদর্শক বিএম লিয়াকত আলীকে এ মামলায় আসামী করা হয়েছে। বিচারক এমএ জাহিদ রোববার আদেশের জন্য দিন ধার্য করেছেন। মামলার বিবরণে জানা যায়, শ্যামনগরের বিড়ালক্ষী গ্রামের কবির হোসেন একজন ইটভাটা শ্রমিক। আগামি মৌমুসে ইটভাটায় কাজ করার জন্য শ্রমিক সরদার ৯নং সোরা গ্রামের আবিয়ার রহমানের সঙ্গে আটুলিয়া যুবলীগ অফিসে বসে তিনি চুক্তিবদ্ধ হন। এ সময় তিনি আবিয়ার রহমানের কাছ থেকে ৩০ হাজার টাকা অগ্রিম হিসেবে নগদ গ্রহণ করেন। বিকেল চারটার দিকে আবিয়ার রহমানকে নওয়াবেকী খেয়াঘাটে পৌঁছে দেওয়ার সময় চৌরাস্তার মোড় থেকে শ্যামনগর থানার উপপরিদর্শক বিএম লিয়াকত আলী তাকে জোরপূর্বক মোটর সাইকেলে তুলে থানায় নিয়ে যান। এ সময় থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার অফিসে বসে থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সৈয়দ মান্নান আলী ও উপপরিদর্শক বিএম লিয়াকত আলী তার কাছে ঈদ খরচ বাবব ৫০ হাজার টাকা দাবি করেন। মামলার বিবরণে আরো জানা যায়, টাকা দিতে অপারগতা প্রকাশ করায় উপপরিদর্শক বিএম লিয়াকত আলী সামনে আসিয়া কবীর হোসেন সবুজের দু’ হাত ধরে রাখেন। এ সময় থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা তাকে লাঠি দিয়ে উপর্যুপরি পিটিয়ে রক্তাক্ত জখম করেন। পরে তার পকেটে থাকা ৩০ হাজার টাকা কেড়ে নেন। পরে উপপরিদর্শক বিএম লিয়াকতের নির্দেশে কবীর হোসেন সবুজকে কর্তব্যরত অফিসারের কক্ষের জানালার সঙ্গে হ্যাণ্ডকাপ পরিয়ে রাখা হয়। খবর পেয়ে বাবা ও স্ত্রী থানায় আসার পর ২০ হাজার টাকার দাবিতে তাকে উপপরিদর্শক বিএম লিয়াকত হোসেন লাঠি দিয়ে এলোপাকাড়ি পিটিয়ে জখম করেন। স্ত্রী, মা, বাবা ও স্বজনরা ১৮ হাজার টাকা এনে দেওয়ার পর ওই দিন রাত ১০ টার দিকে সবুজের কাছ থেকে কয়েকটি সাদা কাগজ ও নন জুডিশিয়াল স্ট্যাম্পে স্বাক্ষর করিয়ে নিয়ে থানা থেকে ছেড়ে দেওয়া হয়। পরদিন সবুজ সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎিসা গ্রহণ করেন। আবারো শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় সবুজকে ৬ জুন সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়।
এ ব্যাপারে জানতে চাইলে শ্যামনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সৈয়দ মান্নান আলী বলেন, এ ধরণের ঘটনা তার জানা নেই। বাদী পক্ষের আইনজীবী অ্যাড. মুজিবর রহমান মামলা ও রোববারে আদেশ দেওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

445 COMMENTS

  1. hello there and thank you for your information – I have certainly picked up something new from right here. I did however expertise a few technical issues using this web site, since I experienced to reload the web site a lot of times previous to I could get it to load correctly. I had been wondering if your hosting is OK? Not that I am complaining, but slow loading instances times will often affect your placement in google and could damage your quality score if advertising and marketing with Adwords. Anyway I am adding this RSS to my email and could look out for a lot more of your respective intriguing content. Make sure you update this again soon.|

  2. Undeniably believe that which you said. Your favorite justification seemed to be on the net the simplest thing to be aware of. I say to you, I certainly get irked while people think about worries that they just don’t know about. You managed to hit the nail upon the top and defined out the whole thing without having side effect , people can take a signal. Will probably be back to get more. Thanks|

  3. My programmer is trying to convince me to move to .net from PHP. I have always disliked the idea because of the costs. But he’s tryiong none the less. I’ve been using WordPress on numerous websites for about a year and am worried about switching to another platform. I have heard excellent things about blogengine.net. Is there a way I can transfer all my wordpress posts into it? Any help would be greatly appreciated!|

  4. With havin so much content do you ever run into any issues of plagorism or copyright infringement? My site has a lot of exclusive content I’ve either authored myself or outsourced but it appears a lot of it is popping it up all over the web without my authorization. Do you know any ways to help prevent content from being stolen? I’d certainly appreciate it.|