শ্যামনগরে এই সেই আদি যমুনা

0
166

শ্যামনগর প্রতিনিধি : আদি যমুনা এখন মাত্র ইতিহাসের পাতায়। নেই তার প্রবাহ, নেই তার ক্ষরস্রোত। আছে শুধু কালের স্বাক্ষীর নমুনা মাত্র। বহুল আলোচিত শ্যামনগর আদি যমুনা এখন নালায় পরিনত হয়েছে। একদা যেখানে বড় বড় জাহাজ চলত এখন সেখানে ডিঙি নৌকাও চলে না। উপজেলা প্রশাসনের একেবারেই নাকের ডগায় রয়েছে এ আদি যমুনার একাংশ, যার উপর দিয়ে অল্প কিছুদিন হল তিনটি মিনি ব্রীজ নির্মাণ করা হয়েছে যাতে উপজেলা সদরের বর্ষার পানি এ ব্রীজের নীচ দিয়ে নিষ্কাশন হয়। নামমাত্র খননও করা হয়েছে যার বর্তমান দৃশ্য চোখে না দেখলে বিশ্বাস করা কঠিন হবে। দুইপাশ দখল করে রাখা অনেককে উচ্ছেদ করা হলেও মূলত পানি নিষ্কাশনের ব্যবস্থা সেই পূর্বে মতই রয়ে গেছে। নকিপুর হাটবাজারের আবর্জনা বর্জ এ যমুনার ফেলে সম্পূর্ণ পরিবেশ দূষণ করে রাখা হয়েছে। উপজেলা প্রশাসন চত্বর থেকে থানায় যেতে, সহকারী কমিশনার (ভূমি) অফিস যেতে এবং এম.এম. প্লাজা থেকে কাশিমাড়ী সড়কে যেতে মিনি ব্রীজ পার হতে পথচারীদের নাকে কাপড় দেওয়া লাগবেই। ময়লা আবর্জনা ও বর্জের গন্ধে নাক বন্ধ না করলে পথচলা দায়। এমনই দৃশ্য দেখলে কেউ কি বিশ্বাস করবে এই সেই আদী যমুনা? এতদসত্ত্বেও স্থানীয় প্রশাসনের নেই কোন মাথা ব্যাথা। নেই কোন দেখভালের ব্যবস্থা। পানির প্রবাহ স্বাভাবিক রাখার জন্য মিনি ব্রীজ নির্মাণ করলেও কার্য্যত এভাবে চলতে থাকলে আগামী ২-৩ বছরের মধ্যে হাট বাজারের ময়লা আবর্জনা ও বর্জ্য আবারও ভরাট হবে এ আদী যমুনা। যমুনা পুণঃরুদ্ধার দখলমুক্ত করতে দীর্ঘদিন চলছে আন্দোলন যা কার্যত নিস্ফল। যমুনা বাঁচাও আন্দোলন কমিটির অন্যতম সতস্য অধ্যক্ষ আশেক-ই-এলাহি বলেন দীর্ঘ ১০ বছর কাল আদি যমুনা পুণঃরুদ্ধার করার আন্দোলন করে আসলেও কার্যত প্রশাসনের অবহেলা ও অনীহার কারণে আদি যমুনা উদ্ধার আন্দোলন নিষ্ফল হয়ে পড়েছে।