শেখ হাসিনা সেদিন স্বদেশ প্রত্যাবর্তন না করলে বাংলাদেশের উন্নয়ন হতো না- এমপি রবি

0
184

নাজমুল হোসাইন:

বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সভানেত্রী, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৩৭তম স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে সাতক্ষীরা জেলা তাঁতীলীগের আহবানে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। বুধবার বিকালে জেলা ছাত্রলীগ কার্যালয় সংলগ্ন সমবায় মার্কেটের দ্বিতীয় তলায় জেলা তাঁতীলীগের সভাপতি মীর আজহার আলী শাহিনের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি মুনসুর আহমেদ। প্রধান বক্তা হিসেবে বক্তব্য রাখেন সাতক্ষীরা-২ আসনের সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা মীর মোস্তাক আহমেদ রবি। এসময় তিনি বলেন, ‘জাতির জনকের কন্যা ৩ বারের সফল প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ম শেখ হাসিনা যদি সেদিন স্বদেশ প্রত্যাবর্তন না করতেন তাহলে আওয়ামীলীগের অস্তিত্ব বিলীন হয়ে যেতো। বাংলাদেশের এতো উন্নয়ন সম্ভব হতোনা। স্বাধীনতা বিরোধী অপশক্তি স্বাধীনতার সঠিক ইতিহাস মুছে ফেলতো। সেদিন শেখ হাসিনা দেশে ফিরে বলেছিলেন, ‘সব হারিয়ে আমি আপনাদের মাঝে এসেছি। বঙ্গবন্ধুর নির্দেশিত পথে তার আদর্শ বাস্তবায়নের মধ্য দিয়ে জাতির পিতার হত্যার বিচার বাস্তবায়নে আমি জীবন উৎসর্গ করতে চাই। আমার আর হারাবার কিছু নেই। আমি আপনাদের মাঝেই সব কিছুই পেতে চাই। আপনাদের নিয়েই আমি বঙ্গবন্ধুর নির্দেশিত পথে তা বাস্তবায়ন করে বাংলা দুঃখী মানুষের মুখে হাঁসি ফুটাতে চাই। বাঙালী জাতির আর্থ সামাজিক তথা সার্বিক মুক্তি ছিনিয়ে আনতে চাই।’ ১৯৮১ সালের এই দিনে দেশে ফেরার পর থেকে তিনি নিরলসভাবে দেশের অধিকারহারা মানুষের অধিকার প্রতিষ্ঠার জন্য নিরবিচ্ছিন্ন লড়াই সংগ্রাম অব্যাহত রেখেছেন।’ বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামীলীগের প্রচার সম্পাদক শেখ নুরুল হক, জেলা মহিলা আওয়ামীলীগের সম্পাদিকা জ্যোন্সা আরা, জেলা আওয়ামীলীগ নেতা ডা. মুনসুর আহমেদ, এড আজহারুল ইসলাম প্রমুখ। এসময় উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামীলীগের তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক সৈয়দ হায়দার আলী তোতা, জেলা শ্রমিকলীগ নেতা শেখ তওহিদুর রহমান ডাবলু, জেলা আওয়ামীলীগ নেতা মো. আজিবর রহমান, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সদস্য এপিপি এড. তামিম আহমেদ সোহাগ, সাবেক ছাত্রলীগের সভাপতি কাজী আক্তার হোসেন, জেলা তাঁতীলীগের সাধারণ সম্পাদক তওহিদুজ্জামান, পৌর তাঁতীলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. ক্যাপ্টেন হোসেন প্রমুখ। এসময় জেলা আওয়ামীলীগসহ সহযোগি সংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। সমগ্র অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন জেলা আওয়ামীলীগের দপ্তর সম্পাদক শেখ হারুন উর রশিদ।