শিশু আবু বক্কর ছিদ্দিক বাঁচতে চাই

0
46
শেখ রায়হান হোসেন ॥
রিপোর্ট দিয়েছেন সাতক্ষীরার ‘শফি ডায়াগনষ্টিক সেন্টার এন্ড কনসালটেন্ট সার্জিক্যাল ক্লিনিক’ এর শিশু বিশেষজ্ঞ ডাঃ মোঃ আবু সাঈদ, মোবা ঃ ০১৭২০-৯১৯২৩২। রোগী শেখ আবু বক্কর ছিদ্দিক (৩), পিতা জুয়েল শেখ, গ্রাম তৈলকুপী, থানা পাটকেলঘাটা। ডাঃ আবু সাঈদ রিপোর্টে বলেছেন শিশুটির ‘ব্লাড ক্যান্সার’ এর আশঙ্কা বেশি। তবে তিনি সম্পূর্ন নিশ্চিত করেননি।
পাটকেলঘাটয় ৩ বছরের শিশু আবু বক্কর ছিদ্দিক গত ৩ মাস যাবৎ ধরে এক অজানা রক্ত শূন্য রোগে ভুগছিল। কিন্তু কি কারনে তার শরীর থেকে রক্ত শূন্য হয়ে যাচ্ছিল তেমন কোন ফলাফল রিপোর্ট দিতে পারিছেলেন না চিকিৎসকরা। প্রতি মাসে তার প্রায় ২ ব্যাগ করে রক্তের প্রয়োজন হতো। শিশুটির পিতা একজন ট্রলি ড্রাইভার। তাও যদি ট্রলি টা নিজের হতো তাহলেও কিছুটা। দরিদ্র পরিবারে জন্ম হওয়ায় শিশুটিকে ভাল চিকিৎসা করানো সম্ভব হয় নি। বর্তমান শিশুটির রক্ত শূন্যতা বেড়েই চলেছে সেই সাথে ফুলে গেছে তার গলা ও মুখ। গত ০৫-১১-১৭ ইং তারিখ রবিবার সাতক্ষীরার ‘শফি ডায়াগনষ্টিক সেন্টার এন্ড কনসালটেন্ট সার্জিক্যাল ক্লিনিক’ এর শিশু বিশেষজ্ঞ ডাঃ মোঃ আবু সাঈদ তিনার শেষ রিপোর্ট টি শিশুটির পিতাকে জানিয়েছেন।
শিশুটির পিতার কাছ থেকে জানা যায়, ডাঃ আবু সাঈদ শিশুটির পিতাকে বলেছেন আপ্নার ছেলেকে বাঁচাতে চাইলে অতি শিঘ্রয় “ঢাকা মেডিকেল কলেজ” হাসপাতালে ভর্তি করিয়ে ভাল চিকিৎসা করানোর ব্যবস্থা করুন। তাহলে আমাদের ধারনা বদলাতেও পারে। এসময় শিশুটির পিতা রিপোর্ট টি হাতে পেয়েই পরল চরম বিপাকে। কেমন করে এত টাকা খরচ করব..? আমার ত সামর্থ নাই এত টাকার ! জমি জমা বলতে শুধু মাত্র পৈত্রিক ভিটা টুকু আছে। তাও আবার তকতা দিয়ে তৈরি ঘর। সেটুকু খোয়ালে তাকে পথে গিয়ে বসতে হবে মা, বাবা ও স্ত্রীকে নিয়ে।
দিশেহারা হয়ে কোন উপায় না পেয়ে শিশুটির পিতা এ প্রতিবেদককে বলেন,  আমার শিশু ছেলেটাকে বাঁচাতে হবে অনেক টাকার প্রয়োজন। শিশুটির পিতা স্বহৃদয়বান ব্যক্তিদের কাছে তার শিশুটির চিকিৎসার জন্য সাহায্য চেয়েছেন। তবেই ৩ বছরের শিশু আবু কক্কর ছিদ্দিককে বাঁচানো সম্ভব হবে। যদি শিশুটির চিকিৎসার জন্য কেউ কোন ভাবে সাহায্য করতে চান তাহলে শিশুটির পিতার ০১৭৯৬-৪২৫৭৮৭ নাম্বারে যোগাযোগ করতে পারেন। বর্তমান তার পরিবারের সকলের মাঝে নেমে  এসছে শোকের ছায়া। এত সুন্দর পৃথিবীর সকল কিছুই শিশুটির অজানা। শিশু আবু বক্কর ছিদ্দিক বাঁচতে চাই। সকলের কাছে দাবী, এই শিশু আবু বক্করকে দুনিয়াতে বেচে থাকার জন্য সকলেই সকলেই সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিন, বাকী আল্লাহ ভরসা।
আবু সাঈদ, মোবা ঃ ০১৭২০-৯১৯২৩২। রোগী শেখ আবু বক্কর ছিদ্দিক (৩), পিতা জুয়েল শেখ, গ্রাম তৈলকুপী, থানা পাটকেলঘাটা। ডাঃ আবু সাঈদ রিপোর্টে বলেছেন শিশুটির ‘ব্লাড ক্যান্সার’ এর আশঙ্কা বেশি। তবে তিনি সম্পূর্ন নিশ্চিত করাননি।
পাটকেলঘাটয় ৩ বছরের শিশু আবু বক্কর ছিদ্দিক গত ৩ মাস যাবৎ ধরে এক অজানা রক্ত শূন্য রোগে ভুগছিল। কিন্তু কি কারনে তার শরীর থেকে রক্ত শূন্য হয়ে যাচ্ছিল তেমন কোন ফলাফল রিপোর্ট দিতে পারিছেলেন না চিকিৎসকরা। প্রতি মাসে তার প্রায় ২ ব্যাগ করে রক্তের প্রয়োজন হতো। শিশুটির পিতা একজন ট্রলি ড্রাইভার। তাও যদি ট্রলি টা নিজের হতো তাহলেও কিছুটা। দরিদ্র পরিবারে জন্ম হওয়ায় শিশুটিকে ভাল চিকিৎসা করানো সম্ভব হয় নি। বর্তমান শিশুটির রক্ত শূন্যতা বেড়েই চলেছে সেই সাথে ফুলে গেছে তার গলা ও মুখ। গত ০৫-১১-১৭ ইং তারিখ রবিবার সাতক্ষীরার ‘শফি ডায়াগনষ্টিক সেন্টার এন্ড কনসালটেন্ট সার্জিক্যাল ক্লিনিক’ এর শিশু বিশেষজ্ঞ ডাঃ মোঃ আবু সাঈদ তিনার শেষ রিপোর্ট টি শিশুটির পিতাকে জানিয়েছেন।
শিশুটির পিতার কাছ থেকে জানা যায়, ডাঃ আবু সাঈদ শিশুটির পিতাকে বলেছেন আপ্নার ছেলেকে বাঁচাতে চাইলে অতি শিঘ্রয় “ঢাকা মেডিকেল কলেজ” হাসপাতালে ভর্তি করিয়ে ভাল চিকিৎসা করানোর ব্যবস্থা করুন। তাহলে আমাদের ধারনা বদলাতেও পারে। এসময় শিশুটির পিতা রিপোর্ট টি হাতে পেয়েই পরল চরম বিপাকে। কেমন করে এত টাকা খরচ করব..? আমার ত সামর্থ নাই এত টাকার ! জমি জমা বলতে শুধু মাত্র পৈত্রিক ভিটা টুকু আছে। তাও আবার তকতা দিয়ে তৈরি ঘর। সেটুকু খোয়ালে তাকে পথে গিয়ে বসতে হবে মা, বাবা ও স্ত্রীকে নিয়ে।
দিশেহারা হয়ে কোন উপায় না পেয়ে শিশুটির পিতা এ প্রতিবেদককে বলেন,  আমার শিশু ছেলেটাকে বাঁচাতে হবে অনেক টাকার প্রয়োজন। শিশুটির পিতা স্বহৃদয়বান ব্যক্তিদের কাছে তার শিশুটির চিকিৎসার জন্য সাহায্য চেয়েছেন। তবেই ৩ বছরের শিশু আবু কক্কর ছিদ্দিককে বাঁচানো সম্ভব হবে। যদি শিশুটির চিকিৎসার জন্য কেউ কোন ভাবে সাহায্য করতে চান তাহলে শিশুটির পিতার ০১৭৯৬-৪২৫৭৮৭ নাম্বারে যোগাযোগ করতে পারেন। বর্তমান তার পরিবারের সকলের মাঝে নেমে  এসছে শোকের ছায়া। এত সুন্দর পৃথিবীর সকল কিছুই শিশুটির অজানা। শিশু আবু বক্কর ছিদ্দিক বাঁচতে চাই। সকলের কাছে দাবী, এই শিশু আবু বক্করকে দুনিয়াতে বেচে থাকার জন্য সকলেই সকলেই সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিন, বাকী আল্লাহ ভরসা।