যে কারণে বাংলাদেশি ক্রিকেটাররা নারী কেলেংকারিতে জড়াচ্ছেন

3
144

অনলাইন ডেস্কঃ

পৃথিবীর বুকে বাংলাদেশকে গর্বিত করেছে পোশাক শিল্প আর ক্রিকেট। এই ক্রিকেটের কারণেই আমাদের একজন সাকিব বিশ্বসেরাদের কাতারে স্থান পেয়েছেন। গর্বিত এ ক্রিকেটের পথচলায় বাংলাদেশ এমন কয়েকজন ক্রিকেটার উপহার দিয়েছে যারা প্রতিনিয়তই জন্ম দিয়েছেন বিতর্ক। এমনকি এখনো বিতর্ককে পাশ কাটিয়ে পারফরমেন্স দিয়ে এগিয়ে চলেছেন। সেবা করে যাচ্ছেন বাংলাদেশের ক্রিকেটের। নানা বিতর্কের আড়ালে ব্যক্তিগতভাবে ক্রিকেটাররা নারী কেলেংকারিতে জড়িয়ে পড়েন। এমনই ৫ বাংলাদেশি ক্রিকেটারকে নিয়ে পাঠকদের জন্য এ আয়োজন।

কি কারণে ক্রিকেটাররা নারী কেলেংকারিতে জড়াচ্ছেন এমন প্রশ্নের জবাবে বিশেষজ্ঞরা  বলেন, ক্রিকেটে এখন প্রচুর টাকার লগ্নি হয়েছে। পেশা হিসাবে খেলোয়াররা চোখ বন্ধ করেই এটাতে যুক্ত হচ্ছেন। একটু ভালো পারর্ফম করতে পারলেই তাদের মধ্যে অহংবোধ চলে আসে। টাকা খরচ করার জায়গা না পেয়ে তা নারীর প্রতি আকৃষ্ট হচ্চেন।

তবে বাংলাদেশ ক্রিকেট নিয়ে দীর্ঘদিন ক্রীড়া সাংবাদিকতা করছেন এমন একজন সিনিয়র রিপোর্টার  বলেন, ওয়ানডে ক্রিকেটে বাংলাদেশ এখন পরাশক্তিতে পরিণত হচ্ছে। বিদেশী কয়েকজন কোচ এক্ষেত্রে কারিগর হিসাবে দারুণ কাজ করেছেন। পাশাপাশি খেলোয়ারদের মধ্যে সেক্স এবং নারী সঙ্গকে বৈধ করার একটা প্রক্রিয়া তৈরি করেছিলেন। এরপর থেকেই শুরু হয়েছে এ ধারা। যার ফলে মেহেরাব হোসেন অপির মতো একজন দারুণ ওপেনার খুব অল্প সময় দলকে সার্ভিস দিতে পেরেছিলেন। সর্বশেষ নারী কেলেংকারিতে যোগ হয়েছেন পেসার শহীদ। বিয়ের পরও তিনি অনেক মেয়ের সঙ্গে সম্পর্কে জড়িত বলে অভিযোগ করেছেন তার স্ত্রী।

মেহেরাব হোসেন অপি: বাংলাদেশের প্রথম ওয়ানডে সেঞ্চুরিয়ান এই ওপেনার ব্যাটসম্যানের ক্যারিয়ারটাই শেষ করে দিয়েছে নারীঘটিত কয়েকটি বিষয়ে। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ১০১ রানের ইংনিস খেলা মেহেরাব হোসেন অপি ব্যক্তিজীবনে বিয়ে করেছেন ৪টি। খেলোয়ারি জীবনে অনেক সুন্দরীর সঙ্গে তার ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক ছিল বলেও নিশ্চিত হওয়া গেছে। প্রতিভাবান এ ক্রিকেটার খুব অল্প সময়ই বাংলাদেশ ক্রিকেটকে কিছু দিয়ে যেতে পেরেছেন।

মোহাম্মদ আশরাফুল: বাংলাদেশের ক্রিকেটের প্রথম সুপার স্টার তিনি। এমন এক বিশ্বরেকর্ডের মালিক বনে আছেন যা কেউ ভাঙতে পারেন কিনা তা নিয়েও যথেষ্ট সংশয় রয়েছে ক্রিকেটবোদ্ধাদের মধ্যে। অভিষেকে সর্বকনিষ্ঠ এ সেঞ্চুরিয়ান জীবনের ৩২টি বসন্ত পার করে এবার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বিয়ে করতে। আগামী ডিসেম্বরেই বিয়ে করছেন আশরাফুল এবং অর্চি। কিন্তু এর আগে বিপিএল কেলেংকারির দায়ে নির্বাসিত এ ক্রিকেটারের সঙ্গে বিতর্কিত মডেল ও অভিনেত্রীর নানা ঘনিষ্ঠতার খবর মিডিয়াতে প্রকাশ পায়।

রুবেল হোসেন: মেহেরাব হোসেন অপি এবং আশরাফুলের মতো তারকা খ্যাতি তার ছিল না। কিন্তু এক উঠতি নায়িকা নাজনীন আক্তার হ্যাপির সঙ্গে প্রেম, শারিরীক সম্পর্ক, মামলা, জেল খাটা…সব কিছুকে পিছনে ফেলে ঠিকই বিশ্বকাপের নায়ক বনে গেছেন পেসার রুবেল। বাংলাদেশের ক্রিকেটে যত নারী কেলংকারির ঘটনাই ঘটুক না কেন সব কয়টাকে পিছনে ফেলেছেন  এই ক্রিকেটার।

আরাফাত সানি: এই সময়ের প্রতিশ্রুতিশীল বাঁহাতি স্পিনার আরাফাত সানি। বিবাহ বহির্ভূত সম্পর্ক করে সুমি নামের মেয়ের সঙ্গে প্রেম প্রণয় এবং শারিরীক সম্পর্ক করে বিপাকে পড়েন তিনি। সুমি আদালতে ভুয়া কাবিন দিয়ে মামলাও করে বসেন। এরপর সানিকে জেলও খাটতে হয়েছে। আদালত থেকে জামিন নিলেও এ সমস্যা থেকে সহসাই মুক্তি পাচ্ছেন না সানি। ফলে সুন্দর একটি ক্যারিয়ারে বাঁধা পেয়ে বর্তমানে জাতীয় দলের বাইরে আছেন।

মোহাম্মদ শহীদ: বোলিংয়ে খুব বেশি বৈচিত্র্য না থাকলেও মোহাম্মদ শহীদ জাতীয় দলে টেস্টে নিয়মিত জায়গা করে নিয়েছিলেন। কিন্তু কন্যা সন্তান হওয়ার পর স্ত্রীকে ঘর থেকে বের করে দেন। তার স্ত্রী বিসিবিতে আনুষ্ঠানিকভাবে অভিযোগ জানিয়েছেন। অপর নারীদের প্রতি আগ্রহ থেকেই শহীদ তার ওপর শারিরীক ও মানসিক নির্যাতন করেছেন বলেও অভিযোগ করেছেন।

 

3 COMMENTS