মোস্তাফিজ অসাধারণ বোলিং করেছে : রোহিত শর্মা

0
130
স্পোর্টস ডেস্ক:
অসাধারণ একটি ম্যাচ দেখলো ক্রিকেট বিশ্ব। হায়দরাবাদের বোলারদের দুর্দান্ত পারফর্মেন্সের পর বল হাতে জ্বলে উঠলেন মুম্বাইয়ের বোলাররাও। মোস্তাফিজদের বোলিং দাপটে জয়ের দ্বারপ্রান্তে চলে গিয়েছিল মুম্বাই। তবে শেষ পর্যন্ত হায়দরাবাদকে জয়ের আনন্দে ভাসান দীপক হুদা।
এ দিকে ম্যাচ হারলেও মোস্তাফিজদের বোলিংয়ের দারুণ প্রশংসা করেছেন অধিনায়ক রোহিত শর্মা। বললেন অসাধারণ বোলিং করেছেন মোস্তাফিজরা। ম্যাচ শেষে মুম্বাই অধিনায়ক বলেন, ‘সত্যিই অসাধারণ একটি ম্যাচ ছিল। আমরা উপভোগ করেছি। আসলে আমাদের ব্যাটসম্যানরা ভালো করতে পারেনি। লড়াইয়ের জন্য রানটা যথেষ্ঠ ছিল না। কিন্তু বোলাররা অসাধারণ বোলিং করেছে। তরুণরা দুর্দান্ত খেলছে। আমাদের অনেক দূর যেতে হবে।
শেষ তিন ওভারে সানরাইজার্সের রান প্রয়োজন মাত্র ১৪। উইকেটে ছিলেন ইউসুফ পাঠান আর দীপক হুদা। ১৮তম ওভারে বল করতে এসে তৃতীয় বলেই ইউসুফ পাঠানকে ফিরিয়ে দিলেন বুমরাহ। বিপর্যয় শুরু হলো তখনই। পরপর দুই বলে দুই উইকেট নিলেন বুমরাহ। হ্যাটট্রিকের সুযোগ। কিন্তু তা না হলেও শেষ বলে রান দিলেন না তিনি। এক ওভারেই ৩ রান দিয়ে ২ উইকেট নিয়ে খেলা ঘুরিয়ে দিয়েছিলেন বুমরাহ।
আর ১৯তম ওভার করার জন্য বল তুলে দেয়া হলো মোস্তাফিজের হাতে। প্রথম বলে দীপক হুদা নিলেন ১ রান। এরপর ৫টি বল টানা ডট। এরই মধ্যে মোস্তাফিজ নিলেন দুটি উইকেট। তারওপর সিদ্ধার্থ কাউলকে নিজের হাতেই রিটার্ন ক্যাচ বানালেন মোস্তাফিজ। এক হাতেই ক্যাচটি ধরলেন তিনি। এক বল বিরতি দিয়ে ওভারের শেষ বলে সন্দ্বীপ শর্মাকে ফিরিয়ে দিলেন কাটার মাস্টার। চমৎকারভাবে পুরো ম্যাচটি যেন মুম্বাইয়ের হাতে তুলে দিলেন মোস্তাফিজুর রহমান। ১৯তম ওভারে মাত্র ১ রান দিয়ে নিলেন ২ উইকেট।
শেষ ওভারে তাই জয়ের জন্য হায়দরাবাদের লক্ষ্য গিয়ে দাঁড়ালো ১১ রানের। তবে বেন কাটিংয়ের করা শেষ ওভারে ১৪ রান নিয়ে দলকে জয় এনে দেন দীপক হুদা।