মুস্তাফিজ দলে থাকলে বাংলাওয়াশ হতো ইংল্যান্ড

0
212

অনলাইন ডেস্ক :

অভিষেকের পর দেশের হয়ে তিনটি সিরিজ খেলেছেন। লাল-সবুজের জার্সি পরে খেলেছেন ভারতে অনুষ্ঠিত টি২০ বিশ্বকাপ। এছাড়া ঘরের মাঠে এশিয়া কাপেও আলো ছড়িয়েছেন। কিন্তু ইনজুরির কারণে আফগানিস্তান এবং ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজে খেলতে পারলেন না। বলছি তরুণ পেসার মুস্তাফিজুর রহমানের কথা।
অভিষেকের পর খুব দ্রুতই বোলিংয়ে কারিশমা দেখান এ বামহাতি পেসার। তার কাটারে পরাস্ত হয়েছেন বিশ্বের বাঘা বাঘা ব্যাটসম্যান। বিরাট কোহলি থেকে শুরু করে গেইল, ডি ভিলিয়ার্সরও তার কাটারে বিধ্বস্ত হয়েছেন।
দেশের হয়ে পাকিস্তানের বিপক্ষে টি২০ ম্যাচে অভিষেক হয় মুস্তাফিজের। প্রথম ম্যাচেই জয় পায় বাংলাদেশ। বল হাতে দারুণ পারফর্ম করেন মুস্তাফিজ। এরপরই শুরু হয় মুস্তাফিজের কারিশমা।
ভারতের বিপক্ষে ওয়ানডেতে অভিষেক হয় মুস্তাফিজের। অভিষেকেই ৫ উইকেট নিয়ে বাংলাদেশের বড় জয়ে ভূমিকা রাখেন তিনি। তার কাটারের কারণে ‘কাটার মাস্টার’ খ্যাতি পেয়ে যান। পরের ম্যাচেই তুলে নেন ৬ উইকেট। ওই ম্যাচেও জয় পায় বাংলাদেশ। শেষ ম্যাচে ২ উইকেট তুলে নিয়ে এক সিরিজে ১৩ উইকেট নেয়ার কীর্তি গড়েন এ বামহাতি পেসার।
আফগানিস্তানের বিপক্ষে ২-১ ব্যবধানে সিরিজ জিতলেও ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ২-১ ব্যবধানে সিরিজ হারে বাংলাদেশ। এই হারে ঘরের মাঠে টানা ৭ম সিরিজ জেতা হলো না বাংলাদেশের।
সিরিজে সবাই ভালো পারফর্ম করেছেন। তবুও কারও অনুপস্থিতি ভালোই টের পাচ্ছিল বাংলাদেশ। আর সেটা যে মুস্তাফিজ তা বলার অপেক্ষা রাখে না।
ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজে মুস্তাফিজ থাকলে হয় তো এই সিরিজও জিতে যেত বাংলাদেশ। ইংল্যান্ডকে বাংলাওয়াশ করা যেত। এমনটাই অভিমত সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক ব্যবহারকারীদের। অনেকেই মুস্তাফিজকে বিদেশের লিগে না খেলার অনুরোধও করেন।
ওহিদুল ইসলাম নামের একজন ফেসবুক ব্যবহারকারী লেখেন, ‘আমি চাই মুস্তাফিজ আর বিদেশের লিগ না খেলুক। কারন মুস্তাফিজ থাকলে আমরা ইংল্যান্ডকেও হারাতে পারতাম বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড এর কাছে আমার অনুরোধ।’
জুঁনিঁয়ঁরঁ সুঁপাঁরঁ স্টাঁরঁ‎ লেখেন, ‘এ সিরিজে ছিল না মুস্তাফিজ। এটা ইংল্যান্ডের সৌভাগ্য। মুস্তাফিজ দলে থাকলে ইংলিশদের বাংলাওয়াশ দেয়া যেত।’
ইবনে ফারুক নামের একজন লেখেন, ‘খুব মিস করেছি আমাদের মুস্তাফিজকে। সে থাকলে হয়ত ফলাফল অন্যরকম হতো!!’
তারেক রহমান নামের একজন লেখেন, ‘মুস্তাফিজকে দেশের বাহিরে লীগ খেলতে দেয়া না হোক। শুধুমাত্র দেশের হয়ে খেলবে মুস্তাফিজ। কেননা বিদেশে খেলতে গিয়ে যদি বারবার ইঞ্জুরিতে পড়তে হয় মুস্তাফিজকে, তাহলে দেশের হয়ে খেলবে কিভাবে? ইঞ্জুরির কারনে খেলতে পারলো না আফগান সিরিজ, খেলতে পারলো না কঠিন লড়াইয়ের ইংল্যান্ড সিরিজ। যার কারনে আমরা সর্বদাই বোলিংয়ে পিছিয়ে ছিলাম। মুস্তাফিজ থাকলে ইংল্যান্ডের ব্যাটসম্যানরা দাঁড়াতেই পারত না, এটা আমার দৃঢ় বিশ্বাস। মুস্তাফিজকে শুধুমাত্র দেশের হয়ে খেলানো হোক। প্রয়োজনে তার payment বাড়িয়ে দিবে বিসিবি।’
জনি আসাদুজ্জামান নামের একজন লেখেন, ‘মুস্তাফিজ থাকলে বৃটিশদের কি হতো চিন্তা করেন!!!??? লজ্জা থেকে বাঁচলো বৃটিশরা…!’
ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজ শেষ হয়েছে। এই সিরিজ নিয়ে আর কথা বলে কোনো লাভ নেই। ক্রিকেটভক্তদের কথা মাথায় রেখে হয় তো ভবিষ্যতে মুস্তাফিজকে দেশের বাইরের লিগে খেলানোর বিষয়টি নিয়ে ভাববে।

LEAVE A REPLY