মুসলিম উম্মাহ যে কারণে মদিনার প্রেমে মশগুল

0
46

অনলাইন ডেস্ক:

বিশ্ব মুসলিমের হৃদয়ের সব আগেব ও উচ্ছ্বাসের কেন্দ্রস্থল হলো মদিনাতুন্নবি বা নবির শহর। যার নাম মদিনা। আল্লাহ তাআলা কুরআনুল কারিমে এ ভূমিকে মদিনাকে অনেক নামে সম্বোধন করেছেন। মদিনা হলো ‘আরদুল্লাহ’ বা আল্লাহর ভূমি; ‘আরদুল হিজর’ বা হিজরতের ভূমি।দুনিয়ার বুকে মদিনা মুনাওয়ারার মতো এত অধিক নাম বিশিষ্ট জনপদ আর দ্বিতীয়টি নেই। কোনো কোনো আলেম মদিনা মুনাওয়ারার একশ’টিরও বেশি নাম উদ্ধার করেছেন।যদিও মদিনার জিয়ারত হজের রোকন নয়; তথাপিও যারা মদিনা ওয়ালার আশেক তারা মদিনার জিয়ারতে থাকে আত্মহারা পাগলপারা। যুগে যুগে যার প্রমাণ দিয়েছেন প্রিয়নবি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের আশেক বান্দাগণ।

Modina

হজরত ইমাম মালিম রহমাতুল্লাহি আলাইহি মদিনাকে দুনিয়ার সব শহরের সেরা ও সর্বোত্তম শহর বলতেন। শুধু তাই নয়, তিনি মদিনায় মৃত্যু কামনায় সমগ্র জীবনে তিনি একবার মাত্র হজ সম্পাদন করেন।ইসলাম পূর্ব যুগে ‘ইয়াসরিব’-এর নাম হলো মদিনা। প্রিয়নবি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম আল্লাহর নির্দেশে ইয়াসরিব হিজরত করেন। যখনই তিনি সেখানে যান তখন থেকেই ওই স্থানটি মদিনাতুন্নাবি বা নবির শহর হিসেবে খ্যাতি ও প্রসিদ্ধি লাভ করে।আল্লাহ তাআলা মদিনার প্রতি মানুষের ভালোবাসা ও মর্যাদা এত বেশি এ কারণে বাড়িয়ে দিয়েছেন যে, ‘মক্কার কুরাইশরা যখন প্রিয়নবির সঙ্গে নির্দয় আচরণ করে চিরতরে হত্যার ষড়যন্ত্র এবং তা বাস্তবায়নে চূড়ান্ত পর্যায়ে উপনীত হন, তখন তিনি আল্লাহর নির্দেশে প্রিয় জন্মভূমি মক্কা ছেড়ে অজানা-অচেনা মদিনায় (ইয়াসরিব) আগমন করেন। তখন এ পবিত্র ভূমি ও তার অধিবাসীরা প্রিয়নবিকে পরম মমতা ও ভালোবাসায় শুভেচ্ছা ও সংবর্ধনার মাধ্যমে স্বাগত জানিয়ে আশ্রয় দিয়ে চিরতরে ধন্য হয়েছিলেন।প্রিয়নবি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামকে গ্রহণের ফলে মদিনার মর্যাদা ও নাম বিশ্বব্যাপী তুলনাহীন বৃদ্ধি পেয়েছে। দুনিয়ার বুকে জান্নাতের মর্যাদা লাভ করে পবিত্র এ শহরটি।

Modina

এ পবিত্র ভূমি প্রিয়নবি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের পবিত্র চরণস্পর্শে ধন্য হয়েছে। এ শহরের প্রতিটি অলিগলি; এ ভূমির আকাশ-বাতাসে মিশে আছে প্রিয়নবির শ্বাস-প্রশ্বাসের সুবাস।শুধু মুসলিম উম্মাহ-ই নয়, স্বয়ং রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামও ছিলেন এ ভূমির জন্য আত্মহারা পাগলপারা। মদিনার প্রতি প্রিয়নবি-এর আকর্ষণ এত বেশি ছিল যে, যখন কোনো সফর থেকে তিনি মদিনায় প্রত্যাবর্তণ করতেন, তখন তিনি উটের গতি বাড়িয়ে দিতেন।কারণ তখন তিনি মদিনায় প্রবেশের জন্য ব্যাকুল থাকতেন। মদিনায় পৌঁছে তাঁর হৃদয় ও মন জুড়াতো এবং তিনি চাদর না খুলেই বলতে থাকতেন, আহ! কী মনোরম এ বাতাস!

পরিশেষে…
যে মদিনার প্রতি স্বয়ং রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের হৃদয়ে এত ভালোবাসা এবং টান বিরাজমান ছিল। সে শহরের মালিকের (প্রিয়নবির) আশেক যারা তাদের ভালোবাসা কেমন হতে পারে?
আল্লাহ তাআলা মদিনাওয়ালার আশেকদেরকে দুনিয়ায় জান্নাতের মর্যাদা লাভকারী মদিনা জিয়ারতে ধন্য হওয়ার তাওফিক দান করুন। মদিনার প্রেমে মশগুল হওয়ার তাওফিক দান করুন।উম্মতে মুহাম্মাদির সবাইকে প্রিয়নবির আদর্শ বাস্তবায়ন এবং মদিনা জিয়ারতের মাধ্যমে পরিপূর্ণ আশেক হয়ে কুরআন সুন্নাহ মোতাবেক জীবন পরিচালনা করার তাওফিক দান করুন। পরকালের সফলতায় প্রিয়নবির সুপারিশ নসিব করুন। আমিন।

গাজী ফারহাদ