বাইপাস সড়ক নির্মান করতে গিয়ে দেবহাটা উপজেলার প্রধান সড়কটি ধ্বংশের পথে

0
223

মোমিনুর রহমান:

সাতক্ষীরার বাইপাস সড়ক নির্মান করতে যেয়ে বালু ভর্তি ট্রাক চলাচলের করনে দেবহাটার উপজেলা সড়কটি এখন ধ্বংশের পথে। প্রায়ই ঘটছে সড়ক দূর্ঘটনা। ব্যস্ততম এই সড়কটিতে প্রতিদিন বালু ভর্তি শত শত ট্রাক  চলাচল করায় সড়কটির বিভিন্ন স্থানে বড় বড় গর্ত সৃষ্টি হয়ে মরণ ফাঁদে পরিণত হয়েছে। যা সাধারণ মানুষের চলাচলের অনুপযোগী হয়ে প্রতিনিয়ত ঘটেই যাচ্ছে দূর্ঘটনা। সাতক্ষীরার জেলা সদর হতে সখিপুর মোড় দিয়ে দেবহাটা উপজেলা সদরে যাতয়াতের একমাত্র ব্যাস্ততম সড়ক এটি। এ সড়কটি দিয়ে সখিপুর খানবাহাদুর আহছানউল্লাহ কলেজ, হাজি কেয়ামদ্দী মহিলা কলেজ, সখিপুর আলিম মাদ্রাসা, সখিপুর দীঘির পাড় সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়, সখিপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়, দক্ষীণ সখিপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়, ঈদগাহ সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়, আমেনা খাতুন মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়, দেবহাটা কলেজ, দেবহাটা পাইলট হাই স্কুল, দেবহাটা মডেল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক এবং কোমলমতি ছাত্র-ছাত্রী সহ দেবহাটা থানা, বিজিবি ক্যাম্প, উপজেলা প্রশাসনের কর্মকর্তা কর্মচারীরা এবং হাজার হাজার সাধারণ পথচারীরা চলাচল করে।বিগত ২-৩ মাস পূর্বের সম্পুর্ণ চলাচলের উপযোগী সড়কটি মাত্র কয়দিনের ব্যবধানে হয়ে উঠেছে অনুপযোগী। সড়কটির বিভিন্ন স্থানের সৃষ্টি হওয়া বড় বড় গর্তে সাইকেল, মটর সাইকেল, ভ্যান চলাচলের সময় পড়ে প্রায়ই ঘটছে দূঘটনা। এ যেন এক মরণ ফাঁদ! বর্ষার পানি রাস্তায় জমে থাকা ময়লা কাদা মাটি আর শুকনার ধুলা বালিতে পড়ে স্কুল ও কলেজ পড়া কোমল মতি ছাত্র-ছাত্রীরা যাতায়াতে প্রতিদিন পড়ছে মহাবিপাকে। অপর দিকে বর্তমানে হাজার হাজার সাধারণ মানুষের চলাচলরের একমাত্র সড়কটি এখন চলাচল অযোগ্য হয়ে পড়েছে। এতে করে একদিকে যেমন সাধারণ মানুষকে পোহাতে হচ্ছে নানা রকম ভোগান্তি অন্যদিকে তেমনি জনসাধারণের কাছে সরকারের ভাবমূর্তি দারুন ভাবে ক্ষুন্ন হচ্ছে। সরেজমিনে গিয়ে দেখাযায়, রাস্তটির ঈদগাহ বাজার নামক স্থান থেকে শুরু করে দেবহাটা কলেজ মোড় পর্যন্ত প্রায় ৩ কিলোমিটার জুড়ে রাস্তাটির বিভিন্ন স্থান খানা-খন্দকে পরিণত হয়েছে। স্থানীয়রা জানান, এই সড়কটি দিয়ে প্রতিদিন হাজার হাজার মানুষ চলাচল করে। কিন্ত এক শ্রেনীর কিছু অসাধু  ব্যবসায়ীরা নিজেদের স্বার্থ হাচিলের জন্য মাত্র কয়েক মাসের ব্যবধানে সড়কটির যে দশা করেছে তা আমাদের চলাচলে অতি কষ্টকর হয়ে উঠেছে। তাছাড়া ইজারাদার নদীর পাড়ে বালু মজুদ করে বন বিভাগের বিভিন্ন প্রজাতির গাছ ধ্বংশে মেতে উঠেছে।তাই রাস্তাটি দ্রুত সংস্কার ও বালুর ট্রাক যাতে করে বন্ধ হয় এবং এর সাথে জড়িতদের আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তির জন্য জেলাপ্রশাসক সহ সংশ্লিষ্ঠ কতৃপক্ষের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন উপজেলাবাসী।এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার হাফিজ আল আসাদ বলেন, বিষয়টি আমি উর্দ্ধতন কতৃপক্ষকে জানিয়েছি।

নাজমুল হাসান