ফসিয়ার রহমান মহিলা কলেজে নান্দনিক পরিবেশ

0
163

পাইকগাছা প্রতিনিধি :
ফসিয়ার রহমান মহিলা মহাবিদ্যালয় পাইকগাছা উপজেলার অন্যতম এক নারী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। প্রতিষ্ঠানটি ইতোমধ্যে শিক্ষা, সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক ক্ষেত্রে যথেষ্ট সুনাম অর্জন করেছে। নয় একর জায়গার উপর কলেজটি প্রতিষ্ঠা করেন দানবীর মরহুম আলহাজ্ব ফসিয়ার রহমান। চারিপাশে বিশাল উচ্চ সিমানা প্রাচীর থাকায় সব সময় কঠোর নিরাপত্তা বজায় থাকে। অভ্যন্তরেই রয়েছে প্রশাসনিক, একাডেমীক ও শিক্ষার্থীদের আবাসিক ভবন। খেলাধুলার পরিবেশ, পুকুরসহ সবুজ প্রকৃতিতে কলেজ ক্যাম্পাস সাজিয়ে তোলা হয়েছে নান্দনিক সাজে। প্রবেশ পথের দুইপাশে লাগানো হয়েছে গাঁধা, গোলাপ, বাগান বিলাস, জবা, মন্দির ঝাউ, মোরগ, রজনীগন্ধা ও নয়নতারাসহ নানা প্রজাতির ফুল। বর্তমানে বেশ কয়েকটি প্রজাতির ফুল ফুটেছে। যার ফলে একদিকে যেমন সৃষ্টি হয়েছে সৌন্দযের সমাহার। অপরদিকে ফুলের সৌরভ ছড়িয়ে পড়েছে চারিদিক। সুরভিত ফুলের সমাহারে সৌন্দযের নতুন এক মাত্রা যোগ করেছে প্রজাপতি। লাল, সাদা ও সবুজ সহ নানা রঙের প্রজাপতিতে ভরে গেছে কলেজ ক্যাম্পাস। প্রজাতিরা ঝাঁকে ঝাঁকে কোন সময় বসছে ফুলের উপর। আবার কোন সময় দল বেঁধে উড়ছে ডানা মেলে। দেখলে মনে হচ্ছে ফসিয়ার রহমান মহিলা কলেজে যেন প্রজাতির মেলা বসেছে। তবে প্রজাপতির এ মেলা নিরাপত্তার কারণে সাধারণ কোন দর্শনার্থী উপভোগ করতে পারছে না। তবে প্রজাতির এমন সমাহার কিংবা মিলনমেলা উপভোগ করতে কার্পণ্য করছেন না শিক্ষক কিংবা শিক্ষার্থীরা। ফুল এবং প্রজাতির মধুর সম্পর্ক কে খুব কাছ থেকে উপভোগ করার সুযোগটি হাতছাড়া করছেন না। কেউ দাড়িয়ে দাঁড়িয়ে উপভোগ করছেন আবার কেউ স্মৃতি হিসাবে তুলে রাখছেন ছবি। এমন নান্দনিক পরিবেশ পেলে কলেজের ন্যায় সবখানেই বসতো প্রজাতির মেলা এমনটাই ধারণা অনেকের।

গাজী মোঃ আব্দুল আলীম/একে/আই।