প্রয়োজনে সংবিধান সংশোধন করা যেতে পারে : ফখরুল

1
169

অনলাইন ডেস্ক:

দেশের সংবিধানে যেহেতু বৃহত্তর জনগোষ্ঠীর আশা-আকাঙ্ক্ষা প্রতিফলন ঘটে, তাই প্রয়োজনে তা পরিবর্তন করা যেতে পারে বলে মনে করেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।আজ সোমবার ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত রাজধানীর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকীকে দেখতে যান বিএনপি মহাসচিব। পরে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি কথা বলেন চলমান রাজনীতির প্রসঙ্গে।সরকারের সমালোচনা করে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘তারা কোনোরকমে এই নির্বাচনে একদলীয় একটা শাসনব্যবস্থা প্রতিষ্ঠা করতে চায় একতরফা একটা নির্বাচন করে। কিন্তু এবার সেটা সম্ভব হবে না। এবার দেশের মানুষও গ্রহণ করবে না। সহায়ক সরকার বলতে আমরা যেটা বুঝিয়েছি, তারা চাইছে না এটা। বৃহত্তর জনগোষ্ঠীর যে আশা-আকাঙ্ক্ষা, তার প্রতিফলনই তো সংবিধান। তো প্রয়োজনে সেটা পরিবর্তনও করা যেতে পারে।’তবে সরকারের লোকেরা যা-ই বলুক, এবার আর দেশের মানুষ ৫ জানুয়ারির মতো একতরফা গায়ের জোরে নির্বাচন করতে দেবে না বলেও মন্তব্য করেন বিএনপির এই নেতা। তিনি বলেন, সরকার নির্বাচনের বিষয়ে আন্তরিক নয় বলেই নিজেদের মনগড়া কথা বলছে।এ সময় রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে মিয়ানমার সরকারকে আন্তর্জাতিক চাপ প্রয়োগ করতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানান বিএনপি মহাসচিব। তিনি বলেন, ‘মানবতাবিরোধী একটা অপরাধ সংঘটিত হচ্ছে। এবং সরকারের উচিত যারা আপনার এভাবে বিতাড়িত হয়ে আসছে, তাদের সাময়িকভাবে আশ্রয় দেওয়া এবং মিয়ানমার সরকারের সঙ্গে যেহেতু আমাদের বর্ডারের সঙ্গে সমস্যাটা, অতিদ্রুত আলাপ-আলোচনার মাধ্যমে তাদের সসম্মানে ফেরত নেওয়ার ব্যবস্থা করা।’অবিলম্বে নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচনের ব্যবস্থা করতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানান মির্জা ফখরুল।

1 COMMENT