পৈত্রিক সম্পত্তি রক্ষার দাবিতে প্রেসক্লাবে এক ব্যক্তির সংবাদ সম্মেলন

0
177
শহর  প্রতিনিধি:
সাতক্ষীরায় বৈধ কাগজপত্র থাক সত্বেও প্রতিবেশী কর্তৃক জোরপূর্বক এক ব্যক্তির পৈত্রিক সম্পত্তি দখলের জন্য বসত বাড়িতে হামলার অভিযোগ উঠেছে। শনিবার বিকালে সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে এই অভিযোগ করেন আশাশুনি উপজেলার মিত্র তেতুলিয়া গ্রামের আশরাফ আলীর ছেলে মোঃ নজরুল ইসলাম।
লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, মিত্র তেতুলিয়া মৌজায় সাড়ে ২২ শতক জমি পৈত্রিক সূত্রে  প্রাপ্ত হয়ে দীর্ঘদিন ধরে আমি ভোগ দখল করে আসছি। কিন্তু গত ২১ ডিসেম্বর খুলনার দাকোপ থানার গড়খালীতিলডাঙ্গা গ্রামের জেহের আলী ফকির ও তার দুই ছেলে গোলাম ফকির ও ময়নুল ফকির, ময়নুর ফকিরের ছেলে বাবু ফকির, গোলোম ফকিরের স্ত্রী নবি বেগম, ময়নুর ফকিরের স্ত্রী নুর জাহান, রেজওয়ান আলীর স্ত্রী সোনিয়া বেগম দা, লাঠি,সাবলসহ দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে অনিধকার প্রবেশ করে উক্ত সম্পত্তিতে থাকা গাছপালা কাটতে থাকে ও ঘেরাবেরা ভাংচুর করে। এসময় আমার বৃদ্ধা মা জায়ফুন বিবি প্রতিবাদ করলে তারা হত্যার উদ্দেশ্যে আমার মায়ের মাথায় শাবল দিয়ে আঘাত করে। একই সাথে ডান পায়ের হাঁটু হাতে আঘাত করে। একে তার হাতের আঙ্গুল ভেঙ্গে যায়। মা’কে রক্ষার জন্য আমার বৃদ্ধ বাবা এগিয়ে গেলে তারা আমার বাবার ডান পায়ের হাটুটে আঘাত করে হাড় ভেঙ্গে দেয়। তাদের মারপিটের ঘটনা দেখে আমার ছোট ভাই সাদ্দাম ও তার স্ত্রী মেহেরুন নেছা ছুটে আসলে তারা সাদ্দামকে বেধে রাখে এবং মেহেরুন নেছার পিটে দায়ের কোপ মেরে গুরুতর জখম করে ও তার গহনা কেড়ে নেয়। এসময় তাদের ডাক চিৎকারে স্থানীয়রা এগিয়ে আসলে উক্ত সম্পত্তি ছেড়ে না গেলে তারা আমাদেরকে হত্যাসহ বিভিন্ন হুমকি দিয়ে দ্রুত ঘটনাস্থল ত্যাগ করে। পরবর্তীতে স্থানীয়দের সহায়তায় আমার মা, বাবা, ছোট ভাই ও তার স্ত্রীকে উদ্ধার করে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে ভর্তি করাই।
তিনি অভিযোগ করে বলেন, গোলাম ফকির গংরা এলাকার চিহিৃত চাঁদাবাজ ও সন্ত্রাসী হিসাবে পরিচিত। তারা জোর পূর্বক এলাকার সাধারণ মানুষের ঘরবাড়ি ও জমি দখল করে থাকে। ভয়ে এলাকার কেউ তাদের বিরুদ্ধে মুখ খুলতে সাহস পায় না। তিনি উল্লেখিত সন্ত্রাসীদের হাত থেকে নিষ্কৃতি পেতে ও পৈত্রিক সম্পত্তি রক্ষা করাসহ তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণে সাতক্ষীরা পুলিশ সুপারসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের জরুরী হস্তক্ষেপ কামনা করেন।