পৃথিবীতে মিঠা পানি কি ফুরিয়ে আসছে?

0
93

অনলাইন ডেস্ক:

পৃথিবীতে পানি পর্যাপ্ত বলেই আমরা জানি৷ কিন্তু ব্যাপক কৃষিকাজ, মাত্রাধিক পানি খরচ ও জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে আমাদের সবুজ গ্রহটিতে পানির আকাল দেখা দিতে পারে, বলে বিশেষজ্ঞদের আশঙ্কা৷পৃথিবীর পানির অধিকাংশ কিন্তু মিঠা পানি নয়, নোনা জল৷ বলতে কি, সমগ্র পানির মাত্র আড়াই শতাংশ মিঠা পানি; সেই মিঠা পানির দুই-তৃতীয়াংশ আবার বরফ হয়ে জমে আছে সুমেরু, কুমেরু আর বিশ্বের নানা হিমবাহে৷ যেটুকু তরল মিঠা পানি বাকি থাকে, তাই দিয়ে মানুষের পান থেকে শুরু করে রান্নাবান্না, ক্ষেতে সেচ দেওয়া থেকে শুরু করে গৃহপালিত পশুদের তৃষ্ণা মেটানো, সমস্ত কাজ চালাতে হয়৷

সুবিধার দিকে এটাও বলতে হয় যে, পানি একটি নবায়নযোগ্য সম্পদ যা চক্রাকারে পরিবর্তিত হয় এবং আমাদের পৃথিবী গ্রহে মোট পানির পরিমাণ চিরকাল মোটামুটি একই থাকবে – অর্থাৎ ফুরিয়ে যাবে না৷ এখন প্রশ্ন হল, সব মানুষের জন্য পর্যাপ্ত পরিমাণ বিশুদ্ধ পানি থাকবে কিনা৷ নেদারল্যান্ডসের টোয়েন্টে বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি সমীক্ষা অনুযায়ী ভবিষ্যতে মোট ৪০০ কোটি মানুষ বছরে অন্তত একটি মাসের জন্য তীব্র জলাভাবের সম্মুখীন হতে পারেন৷ বিশ্বের কোনো কোনো অঞ্চলে ইতিমধ্যেই খরা ও ব্যাপক জলাভাব দেখা দিয়েছে, যেমন হর্ন অফ আফ্রিকা, যেখানে লক্ষ লক্ষ মানুষ বছরের পর বছর খরার শিকার হয়ে ক্ষুধা ও ব্যাধিতে পীড়িত হচ্ছেন৷ ওদিকে পাকিস্তান ২০২৫ সালের মধ্যেই পানিশূন্য হয়ে পড়তে পারে, বলে জাতিসংঘের একটি রিপোর্টে আশঙ্কা প্রকাশ করা হয়েছে৷