পাটকেলঘাটার ধানদিয়ায় সিন্ডিকেটের মাধ্যমে চলছে অবৈধ শুটকি মাছের জমজমাট ব্যবসা

0
54
পাটকেলঘাটা প্রতিনিধি :
পাটকেলঘাটার ধানদিয়া এনায়েত পুরে দীর্ঘদিন থেকে শুটকি পল্লীর গডফাদার হাফিজুর বিশ্বাস ও সাত্তার বিশ্বাসের প্রকাশ্যে মদদে গড়ে উঠেছে অবৈধ শুটকি মাছের ব্যবসা। এ সিন্ডিকেটটির নেই কোন পরিবেশ অধিদপ্তরের লাইসেন্স। এতে করে এলাকার পরিবেশ মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হওয়াসহ বসবাসের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। শুটকি মাছের পঁচা গন্ধে প্রতিনিয়ত বাড়ছে নানান রোগবালাই।
সরেজমিনে ঘুরে দেখা যায়, স্থানীয় ক্ষমতাবান ব্যক্তিদের সাথে হাত মিলিয়ে ও প্রচলিত আইনকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে প্রতিদিন পচা পোনা সহ বিভিন্ন প্রজাতির মাছ ধ্বংস করে, প্রকাশ্যে শুটকি তৈরি করে বাতাসে পচা গন্ধ ছড়িয়ে পরিবেশ নষ্ট করার মত অপরাধ করছে। তবে সরকারি কোন অনুমতি পত্র এদের লাগেনা। বিভিন্ন মহলে নগদ নারায়ণে সন্তুষ্ট করে চলছে তাদের এ অবৈধ ব্যবসা। এনায়েতপুর প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ১০ হাত দুরে দক্ষিণে অবস্থিত শুটকি মাছের পল্লীটি, ছোট ছোট কমলমতি প্রাইমারী, মাদ্রাসা ও হাইস্কুলে শিক্ষক শিক্ষার্থী সহ নানান বয়সী মানুষজন। স্থানীয় জনসাধারণের কাছ থেকে জানা যায়, শুটকি পল্লীর পাশের রাস্তা দিয়ে বেশ কয়েকটি গ্রামের শিক্ষার্থী ও জনসাধারণ চলাচল করে। বিদ্যালয়ের বেশ কয়েকজন শিক্ষার্থী জানান, এ অবৈধ ও নিষিদ্ধ শুটকির পচা দুর্গন্ধে আজ আমরা অতিষ্ঠ। এনায়েতপুর শুটকি মাছের পচা গন্ধে আমরা ঠিক মত ক্লাস করতে পারিনা, বমি হয়, মাথা ঘুরায়, মাঝে মাঝে পেটও খারাপ হয়। নাম না প্রকাশ করার সত্তে স্কুলের এক শিক্ষক জানায়, কেউ এই গডফাদারদের কোন প্রতিবাদ করেনা। প্রতিবাদ করলে জীবন নাশের হুমকি দেয়। তারা সরকারি দলের লোক বলে দাবী করে। এ বিষয়ে শুটকি পল্লীর গডফাদার হাফিজুর বিশ্বাস ও সাত্তার বিশ্বাসের কাছে জানতে চাইলে বলেন, আমি সব কিছু ম্যানেজ করেই শুটকি পল্লীটি চালাই, শুটকি পল্লী­র অনুমোদন আছে কি না, প্রশ্নের উত্তরে বলেন, আমি ইউনিয়ন পরিষদ থেকে ট্রেড লাইসেন্স এনে এ কাজ করি, থানা পুলিশ প্রশাসনের উপর দোষ চাপিয়ে দেয় শুটকি পল্লির গডফাদার হাফিজুর বিশ্বাস ও সাত্তার বিশ্বাস। তাদের এ অদৃশ্য শক্তি কোথা থেকে আসছে তা নিয়ে জনমনে নানা প্রশ্ন। এ বিষয়ে ১নং ধানদিয়া ইউপি চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন, এখানে শুটকি পল্লীটি অনেক দিন ধরে আছে। তবে এ ব্যবসা সম্পর্কে পরিষদ থেকে কোন প্রকার অনুমতি দেওয়া হয়েছে কিনা সেটা এই মুহূর্তে বলতে পারছি না।
এ বিষয়ে শুটকি পল্লীর মালিক হাফিজুর রহমানের ০১৭২৪২২০৩৭৬ নাম্বারে ফোন দিয়ে জানতে চাইলে ব্যস্ততার অজুহাতে তিনি বিষয়টি এড়িয়ে গিয়ে বলেন রাত ৯টার পরে আপনি ফোন দেন।
এ বিষয়ে তালা উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি শেখ নুরুল ইসলাম বলেন, সমাজের কোন ক্ষতি করবে এ ধরনের কেউ দলের পরিচয় দিলে কোন ছাড় দেওয়া হবে না। আর কেউ আইনের ঊর্ধ্বে না।