পাইকগাছায় তুচ্ছ ঘটনায় কিশোরকে মারপিট: এলাকায় উত্তেজনা

0
63

পাইকগাছা প্রতিনিধি:
পাইকগাছায় তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে এক কিশোরকে উপর্যপুরি মারপিট করে গুরুতর আহত করেছে একই এলাকার কয়েকজন যুবক। আহত কিশোরকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। শুক্রবার রাত ৮টার দিকে গড়ইখালীর কুমখালীস্থ খেয়াঘাট মোড়ে মারপিটের এ ঘটনা ঘটে। ঘটনার পর স্থানীয় ব্যবসায়ীরা দোকানপাট বন্ধ রেখে এর তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছে। এদিকে শনিবার সকালে গড়ইখালী ইউপি চেয়ারম্যান রুহুল আমিন বিশ্বাস ও ক্যাম্প পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। এ ঘটনায় এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে। অমরেশ ঢালী জানান, কুমখালী গ্রামের মৃত প্রশান্ত মন্ডলের ছেলে কিশোর বিপ্লব মন্ডল বান্টু (১৫) ঘটনার দিন শুক্রবার রাত ৮টার দিকে কুমখালীস্থ কলেজ খেয়াঘাট মোড়ে রাখা একই এলাকার বেখলাসের মটরসাইকেলের হাত দিয়ে নাড়া-চাড়া করে। এ সময় বেখলাস বিপ্লবের উপর চড়াও হয়ে তাকে ধাওয়া করে। পরে সে জীবন সানার চায়ের দোকানে আশ্রয় নিলে দোকান থেকে তাকে বের করে এনে রাস্তার উপর ফেলে বেখলাস তার সহযোগী নান্টু, বাশার ও ইমামুল সহ কয়েকজন মিলে বিপ্লবকে উপর্যপুরি মারপিট করতে থাকে। ভোলানাথ মন্ডল জানান, মারপিট দেখে আমি ও খেয়াঘাটের মাঝি সহ কয়েকজন ঠেকাতে গেলে তারা আমাদেরকেও মারপিট করে। বিপ্লবের মা নমিতা মন্ডল জানান, মারপিটের খবর পেয়ে আমি ঘটনাস্থলে এসে আহত অবস্থায় আমার কিশোর ছেলে বিপ্লবকে উদ্ধার করি এবং ওই রাতেই তাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করি। ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে ইউপি চেয়ারম্যান রুহুল আমিন বিশ্বাস জানান, এলাকার কয়েকজন যুবক কিশোর বিপ্লবকে উপর্যপুরি মারপিট করে বর্বরতার পরিচয় দিয়েছে। ঘটনার সময় হিন্দু সম্প্রদায়ের লোকজন যদি পাল্টা ওদের উপর চড়াও হতো তাহলে ওখানে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের ঘটনা ঘটতো। এ খবর জানতে পেরে আমি দলীয় লোকজনকে সাথে নিয়ে শনিবার সকালে ঘটনাস্থল পরিদর্শন ও বিক্ষুদ্ধ এলাকাবাসীর সাথে আলোচনা করে বন্ধ রাখা দোকান-পাট খোলার জন্য বলেছি। পাশাপাশি ওই যুবকদের শনিবার সন্ধ্যার মধ্যে বিষয়টি নিস্পত্তির জন্য সময় বেঁধে দিয়েছি। একই সাথে এলাকার কোন সড়কে তাদের মটরসাইকেল চালানো নিষেধ করে দিয়েছি। এর মধ্যে কোন সমঝোতা না হলে তাদের বিরুদ্ধে আইননানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে স্থানীয় এ জনপ্রতিনিধি জানিয়েছেন।

গাজী মোঃ আব্দুল আলীম