ধুলিহরে মৎস্য ঘেরে চাঁদার দাবীতে হামলা করায় আদালতে যুবলীগ নেতা সহ ৭ জনের নামে মামলা

0
348

স্টাফ রিপোর্টার:
সদর উপজেলার ধুলিহরে চাঁদার দাবীতে মৎস্য ঘেরে হামলা, ভাংচুর, লুটপাট, হত্যা চেষ্টার ঘটনায় আদালতে যুবলীগ নেতা সহ ৭ জনের নামে মামলা দায়ের হয়েছে। আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য নির্দেশ দিয়েছে। মামলা সূত্রে জানা যায়, ধুলিহর ইউনিয়নের গোবিন্দপুর গ্রামের কওছার মালীর পুত্র ছলেমান মালী দীর্ঘদিন ধরে সুকদেবপুর এলাকার নলডাঙ্গার বিলে নিজ নামীয় ও লীজকৃত ৪৫ বিঘা জমি নিয়ে মৎস্য ঘের করে আসছে। চলতি মাসের ৫ ফ্রেব্রুয়ারি সকালে ধুলিহর ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি ও বালুইগাছা গ্রামের মৃত নবাত আলীর ছেলে আজাহারুল ইসলামের নেতৃত্বে ধুলিহর সানাপাড়া গ্রামের নুরমান আলীর দুই ছেলে আরশাদ আলী ও জামির আলী, বেড়বাড়ী গ্রামের মৃত রজব আলীর ছেলে ও সস্ত্রাসী  মনিরুল ইসলাম, বয়ারবাতান গ্রামের নেপাল সরকারের ছেলে সাধন সরকার, একই গ্রামের মোহাম্মদ আলীর ছেলে যুবলীগ নেতা মন্টু ও নুনগোলা গ্রামের মৃত জোহর আলীর ছেলে নাজমুল কারিকর সহ অজ্ঞাতনামা ১০/১২ জন প্রকাশ্যে দিবালোকে ছলেমান মালীর মৎস্য ঘেরে ঢুকে ৫ লক্ষ টাকা চাঁদা দাবী করে। চাঁদা দিতে অস্বীকার করায় তাকে হত্যার উদ্দেশ্যে মারপিট ও জখম করে। এ সময় তারা ঘেরের বাসা, শ্যালো মেশিন ঘর ব্যাপক ভাংচুর করে টাকা লুট করে। এছাড়া তারা যাওয়ার সময় বেড়জাল ও খেপলা জাল দিয়ে বিভিন্ন প্রজাতির কয়েক মণ মাছ নিয়ে চলে যায়। তাহারা প্রায় ৩ লাখ টাকার ক্ষতিসাধন করেছে। এই ঘটনায় সাতক্ষীরা আমলী আদালত-১ যুবলীগ নেতাকে প্রধান আসামী করে ৭ জনের নামে একটি মামলা দায়ের হয়েছে। মামলা নং- সি, আর, পি ৭১/২০১৭, তাং-০৬/০২/১৭ ইং।  ধুলিহর ইউনিয়ন যুবলীগের নেতা-কর্মীরা এসব কর্মকাণ্ডে এলাকার মানুষ উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছে।  এ ব্যাপারে এলাকাবাসী সংশ্লিষ্ট  কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

LEAVE A REPLY