দেশের মাটিতে আর কোনো ১/১১ হবে না : কাদের

0
221

অনলাইন ডেস্ক :

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, সুপ্রিম কোর্টের রায় নিয়ে আজকে বিষাক্ত পরিবেশ সৃষ্টি হয়েছে। আর এর উস্কানিদাতা হচ্ছে বিএনপি। তারা ভাবছে বাংলার মাটিতে অস্থিতিশীল পরিবেশ সৃষ্টি করে, আরেকটা ১/১১ সৃষ্টি করবে। দেশের মাটিতে আর কোনো ১/১১ ইনশাআল্লাহ হবে না। বুধবার দুপুরে রাজধানীর জাতীয় ক্রীয়া পরিষদ মিলনায়তনে শেখ রাসেল জাতীয় শিশু-কিশোর পরিষদের শোক দিবসের আলোচনা সভায় তিনি একথা বলেন।

তিনি বলেন, দেশ-বিদেশে বিএনপি ষড়যন্ত্র করছে। জনগণ কেন বিএনপির পাশে নেই, এজন্য প্রতিশোধ নিতে তারা এখন শেখ হাসিনার বিরুদ্ধে লেগেছে। দেশ-বিদেশে ষড়যন্ত্র করছে, এ ষড়যন্ত্র সফল করতে দেশে-বিদেশে বৈঠক করছে। তিনি বলেন, কোনো বৈঠকেই কাজ হবে না। বাংলার মানুষ সব ষড়যন্ত্রের জবাব দেবে।

বিএনপি মহাসচিবের উদ্দেশ্যে কাদের বলেন, ফখরুল সাহেব দিল্লি বহুদূর, সে স্বপ্ন স্বপ্নই থেকে যাবে। তাই বিদ্বেষমূলক কথা বলছেন। অন্ধ আক্রোশ নিয়ে কথা বলছেন। শক্তি কমে আসছে তো, তাই মূর্খের বিষ উগ্র তাদের। মওদুদ সাহেব ধীরে… ফখরুল সাহেব ধীরে… স্বপ্ন দেখছেন তো। দেশের জনগণ আপনাদের ক্ষমতার স্বপ্নের সঙ্গে নেই। অচিরেই এই খোয়াব, দিবা স্বপ্ন ভেঙে যাবে।

সংবিধানের ষোড়শ সংশোধনী বাতিলের রায় নিয়ে বিএনপির বক্তব্যের প্রতিক্রিয়া বিষধর সাপ নিয়ে খেলা করার সঙ্গে তুলনা করে কাদের বলেন, মওদুদ সাহেব চরমমূল্য দিতে হবে আপনাদের। আজকে বিষধর সাপ নিয়ে আপনারা খেলা করছেন। এই সাপের ছোবল থেকে আপনাদের রক্ষা নেই। যেই সাপ নিয়ে খেলছেন সেই সাপের ছোবলে আপনাদের করুণ পরিণতি হবে।

বিএনপি নেতা খন্দকার মোশাররফকে উদ্দেশ্য করে ওবায়দুল কাদের বলেন, ১৫ ও ২১ আগস্ট নিয়ে আপনারা বলছেন এটা জাতীয় দুর্ঘটনা, ইতিহাসের কি নির্মম তামাশা, সত্যের সঙ্গে কি নির্মম তামাশা। শেখ হাসিনা ২১ আগস্টে বেঁচে গেছেন, এটাই আপনাদের জন্য দুর্ঘটনা। গত সাড়ে আট বছরে কখনও আমাদের পথে পুষ্প বিছানো ছিল না। কন্টকাকীর্ণ পথ অতিক্রম করছি। তাদের রক্তের পিপাসা এখনও শেষ হয়নি। তারা পথ খুঁজছে, একটা সুযোগ পেলেই ঘোলা পানিতে মাছ শিকার করবে।

আদালতের রায় বিএনপিকে কখনও ক্ষমতায় বসাবে না জানিয়ে সেতুমন্ত্রী বলেন, সুপ্রিম কোর্টের রায় নিয়ে তারা ধরেই নিয়েছে বিজয়ের পথ বুঝি সুগম হল। ক্ষমতা হারানোর মধুর সিংহাসন বসার রঙিন খোয়াব কখনও পূর্ণ হবে না। দীবা স্বপ্ন ভেঙে যাবে।

এস এম পলাশ

LEAVE A REPLY