দেবহাটায় বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রীর ছবি ভাঙচুরকারী শিক্ষক বরখাস্ত

0
115
দেবহাটা প্রতিনিধি :

দেবহাটায় প্রধান শিক্ষক কর্তৃক বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রীর ছবি ভাঙচুর করার অপরাধে সেই দেবহাটা উপজেলার টিকেট ২নং সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক প্রশান্ত কুমার মল্লিককে বরখাস্ত করা হয়েছে। প্রশান্ত কুমার মল্লিকের বিরুদ্ধে উত্থাপিত অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা রুহুল আমিন এই বরখাস্তের আদেশ দেন। সূত্র মতে, গত বুধবার সকালে ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক প্রশান্ত কুমার নিজে বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রীর ছবি ভেঙ্গে নিজের বিভিন্ন অপকর্মের দোষ চাপানোর অসৎ উদ্দ্যেশ্যে দেবহাটা উপজেলা সহকারী শিক্ষা কর্মকর্তা মঞ্জুরুল আলমের উপর দোষ চাপানোর চেষ্টা করেন। কিন্তু স্কুলের শিক্ষকমন্ডলী, পুলিশ ও এলাকাবাসীর সহযোগিতায় উক্ত শিক্ষকের ঐ দূরভীসন্ধীমূলক কর্মকাণ্ড ফাঁস হয়ে পড়ে। এ বিষয়ে ঐ স্কুলের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি দিলীপ কুমার মণ্ডল ঐদিনই নিজে বাদী হয়ে ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক প্রশান্ত কুমার মল্লিকের বিরুদ্ধে দেবহাটা থানায় সাধারণ ডাইরি করেন। এছাড়া উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার তার অফিসের ২৫২ নং স্মারকে ঐদিনই জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তার নিকট লিখিত প্রতিবেদন দাখিল করেন। জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা সহকারী জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মহিউদ্দীনকে তদন্ত কর্মকর্তা নিয়োগ করে এ বিষয়ে সরেজমিনে তদন্ত করে প্রতিবেদন দিতে বলেন। গত ৩১/০৩/১৮ ইং তারিখে তিনি সরেজমিনে তদন্ত করে গত ০১/০৪/১৮ ইং তারিখে ৮৩০ নং স্মারকে এ বিষয়ে প্রতিবেদন দেন। উক্ত প্রতিবেদন মোতাবেক ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক প্রশান্ত কুমার মল্লিকের বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা রুহুল আমিন গত ০১-০৪-২০১৮ ইং তারিখে তার অফিসের ৮৩১/৯ নং স্মারকে সরকারী কর্মচারী (শৃঙ্খলা ও আপিল) বিধিমালা, ১৯৮৫ এর বিধি-৩ (বি) অনুযায়ী অসদাচরণের পর্যায়ভুক্ত অপরাধ করায় গত ২৮-০৩-২০১৮ ইং তারিখ থেকে সাময়িক বহিষ্কার করার আদেশ প্রদান করেছেন। এছাড়া তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলা দায়ের করা হয়েছে বলে জানা গেছে। দেবহাটা উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা প্রণব কুমার মল্লিক প্রশান্ত কুমার মল্লিককে বহিষ্কার করার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। এছাড়া তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলা দায়ের করা হয়েছে বলেও তিনি জানিয়েছেন।