ঘর সাজাতে দেয়ালঘড়ি

0
133

অনলাইন ডেস্ক :

হাতঘড়ির প্রতি আবেদন কমে গেলেও দেয়ালঘড়ির প্রতি মানুষের আকর্ষণ বাড়ছে দিন দিন। ঘড়ি শুধু সময়ই দেখায় না। এটি আপনার রুচিরও পরিচায়ক। এই ঘড়ির আগমন আজ থেকে কয়েক হাজার বছর আগে থেকে। তখন ঘড়িতে ছিল না কোনো মিনিট আর সেকেন্ডের কাঁটা। তবে এর সময় ছিল নিখুঁত। একটি নির্দিষ্ট গোলাকার চাকতিতে একটি নির্দেশক কাঁটা আর ছক করা কয়েকটি ঘর। এর ঘড়ির নাম ছিলো সূর্য ঘড়ি। যা বিবর্তনের ধারায় এখন দেয়াল ঘড়ির রূপ নিয়েছে।

দেয়ালঘড়িতে আছে নানা রঙ আর আকারের ভিন্নতা। কোনোটা মাছের মতো, কোনোটা আবার সাইকেলের মতো। কিছু ঘড়ি ঘণ্টা অনুযায়ী ঢং ঢং শব্দে সময় জানান দেয়। কিছু আছে আবার মোঘল আমলের ডিজাইনের, কিছু ঘড়ি আবার জাহাজের নোঙ্গরের শিকলের মতো দেখতে। অনেক ঘড়ি আবার ত্রিভুজ আকারের আবার কোনোটি খাঁজকাটা নকশায় আঁকা। তবে ঘরের দেয়ালের জন্য মেটাল ঘড়ির চাহিদা সবচেয়ে বেশি।

শোবার ঘরে সাধারন ঘড়ি রাখাটাই ভালো। আর দেয়াল নির্বাচনের ক্ষেত্রে এমন একটি দেয়াল বেছে নেওয়া উচিৎ যাতে ঘড়ি রাখলে আপনার চোখ সহজেই তাতে পড়ে। বসার ঘরে ঘড়ি রাখার ক্ষেত্রে নান্দনিকতা মাথায় রাখুন। অ্যান্টিক ফিনিশ স্টেশন দেয়াল ঘড়ি মানায় বসার ঘরে। এর পাশাপাশি প্রজাপতির নকশা, অ্যাথলেট ঘড়ি, বোতল থেকে বেরিয়ে আসা জিনি ইত্যাদি আপনার বসার ঘরের শোভা বাড়িয়ে দেয়। দেয়াল ঘড়ি নির্বাচনের ক্ষেত্রে দেয়ালের রঙ মাথায় রাখুন। সাদা দেয়ালে হালকা রঙের কিংবা সোনালি, হালকা লাল খুব মানানসই। এছাড়া দেয়াল ঘড়ির ক্ষেত্রে পেন্ডুলাম ঘড়ি বেছে নিতে পারেন। শিশুদের ঘরের ক্ষেত্রে পছন্দ করতে পারেন স্মাইলি ফেসের ঘড়ি, নানা কার্টুন চরিত্রের ঘড়ি।

দরদাম
ঘড়ির নকশা, উপাদান ও আকারের ওপর নির্ভর করে এর দাম। সাধারণ দেয়াল বা টেবিলঘড়ি তো ১৫০ থেকে ৪০০ টাকার মধ্যেই কিনতে পারেন। তবে স্মাইলি নকশা বা ওয়েট-লিফটার টেবিলঘড়ির দাম পড়বে ৫০০ থেকে ৮০০ টাকা। ভালো মানের দেয়ালঘড়ি কিনতে চাইলে আপনাকে ২ থেকে ৮ হাজার টাকা পর্যন্ত গুনতে হবে। তবে ব্র্যান্ডের ঘড়ি হলে দামটা আরও বাড়বে। সাধারণত ৪ থেকে শুরু করে ১৫ হাজার টাকায় কেনা যাবে ব্র্যান্ডের ঘড়ি। কাঠ বা দেশীয় উপাদানে তৈরি দেয়ালঘড়ির দাম পড়বে ৩০০ থেকে ১৫০০ টাকা।

যেখানে কিনতে পাবেন
দেয়াল বা টেবিলের ঘড়ি কিনতে যেতে পারেন পুরান ঢাকার পাটুয়াটুলি, নিউ মার্কেট, বায়তুল মোকাররম মসজিদ মার্কেট, এলিফ্যান্ট রোড, গুলশান ডিসিসি মার্কেট, পল্টন, মতিঝিল, স্টেডিয়াম মার্কেট, গুলিস্তান, মিরপুর ১০ নম্বর গোলচত্বরের আশপাশের দোকানে। বসুন্ধরা সিটি, সীমান্ত স্কয়ার কিংবা উত্তরার নর্থ টাওয়ারের ঘড়ির শোরুমে পাবেন নানা ধরনের ঘড়ি।

এস এম পলাশ