খাদ্য অধিকার বাংলাদেশ সাতক্ষীরা জেলা কমিটির র‌্যালী ও আলোচনা

31
1958

 

শহর প্রতিনিধি:

খাদ্য অধিকার নিয়ে  হাওর অঞ্চলের দুর্গত মানুষের খাদ্য প্রাপ্তি নিশ্চিত করণ ও খাদ্য অধিকার প্রতিষ্ঠায় দেশবাসী এক হও। এই প্রতিপাদ্যকে সামনে নিয়ে খাদ্য অধিকার বাংলাদেশ সাতক্ষীরা জেলা শাখা কর্তৃক আয়োজিত ১৩ থেকে ১৯ মে ২০১৭ পর্যন্ত ক্যাম্পেইনের অংশ হিসেবে সাতক্ষীরা শহীদ আব্দুররাজ্জাক পার্কে বৃহস্পতিবার সকাল ১০ টায়  র‌্যালী ও আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়েছে। বক্তব্যে আলোচকবৃন্দ বিভিন্ন দাবি জানিয়েছেন। দাবিগুলো হলো অবিলম্বে হাওর অঞ্চলকে দুর্গত এলাকা ঘোষণা করা, ক্ষতিগ্রস্ত প্রকৃত মানুষদের জন্য সরকার ঘোষিত খাদ্য ও নগদ অর্থ সহায়তা প্রদান ও প্রাপ্তি নিশ্চিত করা। চাহিদানুসারে হাওর এলাকায় ১০ টাকা কেজি চাল বিক্রয়ের ব্যবস্থা করা। উন্মুক্ত জলমহালের ইজারা বাতিল করে জেলা-কৃষকদের অবাধে মাছ ধরার সুযোগ প্রদান নিশ্চিত করা। বর্ষা মৌসুমে ব্যাংক ও এনজিওর ঋণের কিস্তি আদায় বন্ধ করা।আগামী মৌসুমের ধান ওঠারপূর্ব পর্যন্ত সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত ৮ লক্ষ পরিবারের জন্য সামাজিক নিরাপত্তা কর্মসূচীর অধীনে বিশেষ ভিজিএফ কার্যক্রম চালু করা। পরবর্তী মৌসুমে সরকারের পক্ষ থেকে ঘোষিত কৃষকের সার ,বীজসহ কৃষি উপকরণ সহায়তা নিশ্চিত করা। বাঁধ নির্মাণ ও রক্ষনাবেক্ষনে দুর্নীতি ও অনিয়মের সাথে জড়িত পাউবো’র কর্মকর্তা ও ঠিকাদার সিন্ডিকেটের বিচার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি প্রদান নিশ্চিত করা। হাওরের সমস্যা সমাধানে সর্ব্বোচ পানি প্রবাহের উপরে বাধ নির্মাণ এবং জলাশয়ে নদী খননের মাধ্যমে পানির নাব্যতা ফিরিয়ে আনা। হাওর অঞ্চলের অকাল বন্যায় ক্ষেত্রেজলবায়ু পরিবর্তন প্রধান নিয়ামক কিনা তা খতিয়ে দেখতে প্রয়োজনীয় গবেষণা করা। এবং প্রয়োজনীয় পরিমাণ আমদানি ও বাজার নিয়ন্ত্রণের মাধ্যমে চালের যথাযথ বাজার মূল্যনিশ্চিত করা, কৃষকের উৎপাদিত পণ্যের ন্যায্য মূল্য নিশ্চিত করা, আসন্ন রমজানকে সামনে রেখে সকল নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যাদির বাজার মূল্য নিয়ন্ত্রণের মধ্যে রাখা এবং খাদ্যে ভেজাল প্রদান কারীদের আইনের আওতায় এনে শাস্তি নিশ্চিত করার আহবান করেন।বক্তারা বলেন ২৭ মার্চ দেশের উত্তর-পুর্বাঞ্চলে অতিবৃষ্টি ও পাহাড়ি ঢলে বিস্তীর্ণ হাওর এলাকায় অকাল বন্যা হয়েছে এদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত জেলা সুনামগঞ্জ। পাশাপশি নেত্রকোনা, সিলেট, কিশোরগঞ্জ, মৌলভীবাজার, হবিগঞ্জ ও ব্রাহ্মনবাড়িয়া জেলার হাওর অঞ্চলেও ব্যাপক ক্ষতি সাধিত হয়ে খাদ্যাভাব বা মঙ্গাসংগঠিত হয়েছে। এই এলাকায় উপরোক্ত দাবিগুলো বাস্তবায়নের জন্য সুপারিশ  করা হলো।অনুষ্ঠানে বরসা’র সহকারি পরিচালক নাজমুল আলম মুন্নার সভাপতিত্বে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, স্বদেশের প্রোগ্রাম অফিসার ফারুক হোসেন, নারী নেত্রী মরিয়ম মান্নান ও ফরিদা আক্তার বিউটি। আলোচনার আগে খাদ্য অধিকার বিষয়ক জারি গান পরিবেশন করেন প্রগতি নাট্যদল।

31 COMMENTS