কিমের পদক্ষেপে প্রশংসায় পঞ্চমুখ ট্রাম্প

0
54

অনলাইন ডেস্ক:

প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের গুয়াম দ্বীপে ক্ষেপণাস্ত্র হামলার পরিকল্পনা আপাতত স্থগিত করেছে উত্তর কোরিয়া। পরাশক্তি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে তীব্র উত্তেজনা চলতে থাকার মধ্যে হঠাৎ করেই পিয়ংইয়ং তাদের সুর কিছুটা নরম করেছে।

মঙ্গলবার উত্তর কোরিয়ার রাষ্ট্রীয় সংবাদ মাধ্যমে বলা হয়েছে, গুয়ামের মার্কিন সামরিক ঘাঁটির দিকে ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপের পরিকল্পনা পর্যালোচনা করেছেন উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উন। তবে যুক্তরাষ্ট্রের কার্যক্রম পর্যবেক্ষণ করে হামলার সিদ্ধান্ত নেবেন তিনি।

কিমের এই সিদ্ধান্তে ব্যাপক খুশি হয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। ক্ষেপণাস্ত্র হামলা থেকে আপাত সরে আসার সিদ্ধান্তের কারণে তার প্রশংসা করেছেন ট্রাম্প।

বুধবার এক টুইট বার্তায় ট্রাম্প জানান, অত্যন্ত বিচক্ষণভাবে বিবেচনা করার মতোই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উন। অগ্রহণযোগ্য সিদ্ধান্ত নেয়া হলে তাদেরই বিপর্যয় হতো।

গত সপ্তাহে উত্তর কোরিয়া জানায়, প্রশান্ত মহাসাগরে মার্কিন ভূখণ্ড গুয়ামের কাছে জলসীমায় চারটি ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপের পরিকল্পনা চূড়ান্ত করা হয়েছে। দেশটির সেনাবাহিনী হামলার পরিকল্পনার ব্যাপারে নেতা কিম জং উনকে ব্রিফ করেছে। তবে গুয়ামে হামলা চালানোর আগে যুক্তরাষ্ট্রের কার্যক্রম পর্যবেক্ষণ করে দেখার কথা জানান কিম।

কিমের ওই সিদ্ধান্তের পর তার সঙ্গে আলোচনার কথাও জানিয়েছেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রি রেক্স টিলারসন। সেই আলোচনাটি যে কিমের ইচ্ছার ওপরই নির্ভর করছে সে ব্যাপারে আলোকপাত করা হয়। উল্লেখ্য, হাওয়াই দ্বীপপুঞ্জের চার হাজার মাইল পশ্চিমে এবং উত্তর কোরিয়ার দুই হাজার দুইশ মাইল দক্ষিণ-পূর্বে অবস্থিত এই দ্বীপ প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের অন্যতম ঘাঁটি। নৌবাহিনী ও বিমানবাহিনীর যৌথ এই ঘাঁটিতে মার্কিন পারমাণবিক সাবমেরিন বন্দর রয়েছে।

কোরীয় উপদ্বীপ ও জাপানের ভূখণ্ডের ওপর মার্কিন স্পেশাল অপারেশন ফোর্স ও বোমারু বিমান পরিচালনায় বিশেষ ব্যবস্থা আছে এই দ্বীপে। অনায়াসেই ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালিয়ে উত্তর কোরিয়াকে ধ্বংস স্তুপে পরিণত করতে পারবে যুক্তরাষ্ট্র।

তবে উত্তর কোরিয়ার দাবি, কোনো যুদ্ধ শুরু হলে সেটা হবে পারমাণবিক যুদ্ধ। গুয়ামে হামলা চালাতে তাদের মাত্র ১৪ মিনিট সময় লাগবে। এর জবাবে ট্রাম্প বলেছিলেন, তাদের গুলি ভরা বন্দুক তাক করা আছে। গুয়ামের কিছু হলে উত্তর কোরিয়ার এমন পরিণতি করা হবে এতো রাগ এবং অগ্নি বিশ্ব আগে কখনো দেখেনি। তারপরই কিমের তরফ থেকে নরম হওয়ার আশ্বাস পেয়ে তার প্রশংসা করেন ট্রাম্প।

এস এম পলাশ