কালিগঞ্জ সহকারি উপজেলা শিক্ষা অফিসার বিরুদ্ধে অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগ

0
172

ভ্রাম্যমান প্রতিনিধি:

কালিগঞ্জের সহকারি উপজেলা শিক্ষা অফিসার মডেল ক্লাস্টারের দায়িত্বপ্রাপ্ত আসাদুজ্জামানের বিরুদ্ধে ব্যাপক অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগ উঠেছে। কালিগঞ্জ উপজেলায় প্রায় ৩ বছর যাবত দায়িত্ব পালন করে আসছেন যার  ফলে নিয়ম নীতির কোন তোয়াক্কা না করে স্বেচ্ছাচারিতার মাধ্যমে তিনি দুর্নীতি করে যাচ্ছেন। প্রাপ্ত তথ্যে অনুযায়ী  জানা যায়, সহকারি উপজেলা শিক্ষা অফিসার আসাদুজ্জামান  প্রত্যেককে ১ হাজার ২৬০ টাকা হারে মোট ৬ জনের নামে টাকা উত্তোলন করে ৭ হাজার ৫৬০ টাকা আত্মসাত করেন। স্টেক হোল্ডার প্রশিক্ষণে প্যাড, কলম, ফাইল, নেমকার্ড দেয়ার জন্য সরকারি বরাদ্দ থাকলেও তিনি শুধুমাত্র প্যাড ও কলম দিয়েছেন। এখান থেকে তিনি প্রায় সাড়ে ৯ হাজার টাকা আত্মসাত করেছেন। শিক্ষার্থীদের নেমকার্ড বাবদ ৩০ টাকা হারে নিলেও জনপ্রতি ১০ থেকে ১২ টাকার মধ্যে নেমকার্ড তৈরী করে সরবরাহ করেছেন। স্লিপ স্টেক হোল্ডার প্রশিক্ষণে যেসব শিক্ষকরা উপস্থিত হননি তাদের নাম ভূয়া স্বাক্ষর দিয়ে টাকা উত্তোলন করেছেন বলে অভিযোগ  রয়েছে। চলতি অর্থবছরে ছনকা মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দপ্তর কাম নৈশপ্রহরী পদে নূর আলম এবং দেয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দপ্তর কাম প্রহরী আব্দুর রহমানের নামে সাপোর্ট সার্ভিসের সম্মানী বাবদ প্রাপ্য টাকা ৮ টা ভূয়া বিলভাউচার প্রস্তুত করে তিনি ৭ হাজার ৬৮০ টাকা আত্মসাত করেছেন।  তার সাব ক্লাস্টার ট্রেনিংয়ে শিক্ষক প্রতি ২৪০ টাকা বরাদ্দ থাকলেও প্রত্যেককে ৪০ টাকা হারে কম দিয়ে বিপুল পরিমাণ টাকা নিজের পকেটে ঢুকাচ্ছেন। ট্র্রেনিংয়ে জনপ্রতি ৩০ টাকায় প্যাড ও কলম সরবরাহের বরাদ্দ থাকলেও নিম্ন মানের প্যাড-কলম সরবরাহ করে টাকা আত্মসাত করেন।
এ ছাড়াও ক্লাস্টারের প্রতিটি বিদ্যালয়ের স্লিপে বরাদ্দকৃত ৪০ হাজার টাকার মালামাল বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের ক্রয় করার কথা থাকলেও এ সব বিদ্যালয়ের মালপত্র তিনি নিজ দায়িত্বে ক্রয় করে দিয়েছেন। বিদ্যালয়ে সাউন্ড সিস্টেম বাবদ ৬ হাজার টাকা হারে সরকারি বরাদ্দ থাকলেও তিনি সাড়ে ৩ হাজার টাকার সাউন্ড সিস্টেম সরবরাহ করেছেন। এ সব ক্ষেত্রে নিম্ন মানের সামগ্রী সরবরাহ করে ২ লক্ষাধিক টাকা আত্মসাত করেছেন।
এই ব্যাপারে জানার জন্য সহকারি উপজেলা শিক্ষা অফিসার আসাদুজ্জামান এর নিকট মুঠো ফোনে  বুধবার বিকেল  যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলেও তিনি তার  মুঠোফোনটি রিসিভ করেন নি।

মোঃ আরাফাত আলী