‘কাউয়া’ তাড়াতে গিয়ে যাতে কাউয়াকেই বিদায় করি!

0
85

বরুণ ব্যানার্জী :

‘কমলাকান্দার কান্দাপাড়ার কমলা রানীর কনিষ্ঠা কন্যা কঙ্কাবতী কাকাকে কহিল, কাকা কাক কেন কা-কা করে? কাকা কহিলেন, কা-কা করাই কাকের কাজ।’ কাক কা-কা করবে—এটাই স্বাভাবিক, কেননা এটা কাকেরসহজাত স্বভাব। এতে তো কোনো দোষ থাকার কথা নয়। প্রকৃতি বা সৃষ্টিকর্তা তাকে এভাবেই তৈরি করেছেন। এখানে অবজ্ঞা করার কোনো সুযোগ নেই। আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের কাককুলকে যেভাবে আঘাত করেছেন তাতে কাকেরা খুবই কষ্ট পেয়েছে। তারা বলছে, আমরা কখনো কারো জানালা অথবা দরজা দিয়ে ঘরে প্রবেশ করে কোনো অনিষ্ট করি না। তবুও আমাদের চরিত্রের ওপর কলঙ্ক লেপন করা হয়েছে। আমরা এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি।গণতন্ত্রের দেশ। প্রতিবাদ তো জানাতেই পারে। কতজন কতভাবেই না প্রতিবাদ করছে। লাভ কী? লাভের গুড় নাকি সব কাউয়ায় খাচ্ছে। কাক অথবা কাউয়া, পাখি প্রজাতির একটি নিরীহ প্রাণী। এরা লাভ-লোকসান কি জিনিস তা জানে না। এরা শিকার করতে পারে না। মানুষের ফেলে দেওয়া উচ্ছিষ্ট খেয়েই এরা বেঁচে থাকে। তাদের এই বেঁচে থাকার মধ্য দিয়ে মানবকুলের যে কত উপকার হয়, এই নিয়ে কি একবারও কেউ ভেবেছেন! কোনো রাজনীতিক?

না, ভাবেননি। ভাবেননি বলেই উপমা টানতে গিয়ে ভুল করেছেন। বলতে পেরেছেন। দলের ভেতরে অনুপ্রবেশ করা ‘কাউয়া’দের তালিকা তৈরি করে তাদের লাগাম টেনে ধরতে সারা দেশে মাঠে নেমেছে আওয়ামী লীগ। এ ধরনের নেতাকর্মীরা বর্তমান সরকারের বিশাল অর্জনকে ম্লান করে দিচ্ছে। এই কাউয়ারাই দলে ঘুণ ধরাচ্ছে। সর্বনাশ করছে। উপমা ঠিক না হলেও বক্তব্য শতভাগ সত্য। আওয়ামী লীগের উঁচু-নিচু সব সাংগঠনিক কাঠামোতেই এখন কাউয়াদের ছড়াছড়ি। লুটেপুটে খাওয়াই এদের লক্ষ্য। আওয়ামী লীগের নীতিনির্ধারক পর্যায়ের একাধিক নেতা বলেছেন, ‘কাউয়ারা এমন কোনো জিনিস নেই যাতে ঠোকর মারছে না। আওয়ামী লীগে যে কাউয়াদের উপদ্রব বেড়েছে তা দলের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরই শুধু নন, দেশের মানুষও হাড়েহাড়ে টের পাচ্ছে। আওয়ামী লীগ ঢাকঢোল পিটিয়ে ‘কাউয়া’ তাড়াতে যেভাবে মাঠে নেমেছে তাতে নেতিবাচক কিছু ঘটে যাবে নাতো! আমরা ঘরপোড়া গরু, সিঁদুরে মেঘেই ভয়। ভাবছি, যারা ‘কাউয়া’ উচ্ছেদ অভিযানে কাছা দিয়ে মাঠে নামছেন, কাজ করতে গিয়ে তারাও না ‘কাউয়া’ বনে যান। ‘কাউয়া’ তাড়াতে গিয়ে যাতে কাউয়াকেই বিদায় করি! এটাই আমাদের প্রত্যাশা।

LEAVE A REPLY