কথা দিয়ে রাখলেনা কথা, ছেড়ে দিলে হাত!

0
734
শেখ ইমরান হোসেন:
হাতটিতো তুমিই আগেই ধরেছিলে আর বলেছিলে এ বাধন ছিন্ন হবার নয়। কিন্তু ৫বছর পরে তুমিই হাতটি ছেড়ে অন্যের হাতটি ধরলে। আসলে তুমিই সবই করতে পার, যেথানেই থাকো সুখী থেকো কারণ তোমার সুখই আমার সুখ। কথা গুলো বলতে বলতে কাঁদছিল ছেলেটি। করণ সেই দিন ছিল ছেলেটির জীবনের শেষ দিন। যে মেয়েটি তাকে প্রথমই ভালো বেসেছিলো সেই কিনা একটু ভালো থাকার জন্য অন্যর হাত ধরে অবাধ মেলামেশা শুরু করলো। ছেলেটি জীবনের থেকেও মেয়েটিকে ভালোবাসতো কারণ মেয়েটিই যে ছেলেটিকে ভালোবাসা কাকে বলে এটা শিখিয়েছিল। এজন্য হয়তো জ্ঞানীরা বলেছেন, মেয়েরা ভালো বাসতে বাসতে অভিনয় শুরু করে আর ছেলেরা অভিনয় করতে করতে ভালোবাসে। কি অপরাধ ছিলো আমার, কোন অপরাধের কথাতো তুমি বলতে পারনি । শুধু বলেছিলে, নিজের ভালে থাকার জন্য সবার মত আমিও একটু এরকম করছি। পারলে ক্ষমা করে দিও আমায়। কিনা করেছি তোমার জন্য ? সকল কাজ ছেড়েই তো তোমার কথা মতো তোমার পাশে থেকেছি, দুরে কোথাও পড়তে যাইনি তুমি চাইতে না বলে। কিন্তু ৫বছর পরে এসে আমার থেকে ফর্সা ও লম্বা ছেলেকে যে কিনা তোমার ভালো বন্ধু তার সাথেই অবাধ মেলামেশা শুরু করলে ? ধীক্কার জানাই তোমার এমন ভালোবাসার। কথা তোমার মনে পড়ে যেদিন তুমি আমাকে ভালোবাসার কথা বলেছিলে (এখানে কথা একটি ছদ্দ নাম মাত্র) আমি বলেছিলাম এগুলো ঠিকনা আর আমি এই সব ভালো বুঝিনা। তখন তুমি বলেছিলে তাহলে আমি মারা যাবো। আমি বলেছিলাম বিষয়টি আমি ভেবে দেখবো। তিন দিন পরেও যখন উত্তর দেইনি তখন তুমি বেশি সময় পানিতে ভিজে জ্বর বাধিয়েছিলে। তোমার খবর জানার পরে আমার হাতটি ধরে তুমি বলেছিলে, সব কিছুই ভেবে তোমার হাতটি ধরেছি। এই হাতটি ছেড়ে দেবো যেদিন মরণ হবে আমার সেদিন। কিন্তু একটু সুখি হওয়ার জন্য ৫ বছর পরে ভুলেগেলে তোমার সেই কথা গুলো। তোমার কিছুই তো অভাব রাখিনি ? ও আমিতো এখন অনেক ছোট তাইতো। কারণ আমিতো তোমার মত বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়িনা। এখনতো তোমার হাতে হাত রেখে চলার যোগ্যতা রাখিনা। তুমিতো অনেক বড় মাপের মানুষ হয়ে গেছো। তুমি তো অন্যের হাত ধরে ভালোই আছো আর আমি বেঁচে থেকেও আজ মরে গেছি। তাই একটু কবি হয়ে বলতে ইচ্ছা করে কথা তুমি কথা দিয়ে রাখলেনা তোমর কথা, ছেড়ে দিলে হাত। যোনেই থেকো ভালো থেকো কারণ তোমার সুখই তো আমার সুখ। বিঃদ্রঃ ঘটনাটি কাল্পনিক, কারো জীবনের সাথে মিললে কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।