এবার ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ‘ইত্যাদি’

0
89
অনলাইন ডেস্ক :
ইতিহাস, ঐতিহ্য, সভ্যতা, সংস্কৃতি, প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শন এবং পর্যটন সমৃদ্ধ আকর্ষণীয় স্থানগুলোতে গিয়ে ইত্যাদি ধারণের ধারাবাহিকতায় এবারের পর্ব ধারণ করা হয়েছে শিক্ষা, সাহিত্য, সঙ্গীতে সমৃদ্ধ জেলা ব্রাহ্মণবাড়িয়ায়। গত ১৬ মার্চ ব্রাহ্মণবাড়িয়ার তিতাস নদীর তীরে তিতাসপাড়ার তিতাস গ্যাস ফিল্ডের এক নম্বর কূপের সামনে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিভিন্ন ঐতিহ্যবাহী জিনিস দিয়ে সাজানো মঞ্চে ধারণ করা হয় এবারের ইত্যাদি। আমন্ত্রিত দর্শক ছাড়াও হাজার হাজার মানুষ তিতাস নদীতে নৌকার ওপর, গাছের ওপর, রাস্তায় দাঁড়িয়ে অত্যন্ত সুশৃঙ্খলভাবে মন্ত্রমুগ্ধের মতো উপভোগ করেছেন ইত্যাদির নান্দনিক সব পর্ব। অবাক বিস্ময়ে দেখেছেন একটি অনুষ্ঠান তৈরি করতে কতটা শ্রম দিতে হয়। আর এ জন্যই ইত্যাদি আজ দেশসেরা অনুষ্ঠান, সব শ্রেণি-পেশার মানুষের অন্তরের অনুষ্ঠান।
এবারের ইত্যাদিতে মূল গান রয়েছে একটি। যেহেতু ইত্যাদি এখন দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে গিয়ে ধারণ করা হয় এবং সেই অঞ্চলের শিল্পীদের দিয়েই গান করানো হয়, সেই ধারাবাহিকতায় এবারের ইত্যাদিতে একটি দেশাত্মবোধক গান গেয়েছেন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সন্তান বাংলাদেশের সঙ্গীতাঙ্গনের কিংবদন্তি শিল্পী সৈয়দ আব্দুল হাদী। গানটি লিখেছেন মোহাম্মদ রফিকউজ্জামান এবং সুর ও সঙ্গীতায়োজন করেছেন রাজেশ। গানটির সঙ্গে কোরিওগ্রাফি করেছেন স্থানীয় শিল্পীরা। ব্রাহ্মণবাড়িয়াকে নিয়ে একটি গানের সঙ্গে নৃত্য পরিবেশন করেছেন ব্রাহ্মণবাড়িয়ারই কৃতী শিল্পী অভিনয় তারকা জাকিয়া বারী মম, সঙ্গে ছিলেন স্থানীয় একদল নৃত্যশিল্পী। নাচটির কোরিওগ্রাফি করেছেন মনিরুল ইসলাম মুকুল, সঙ্গীতায়োজন করেছেন মেহেদী। ইত্যাদির এই পর্ব একযোগে বিটিভি ও বিটিভি ওয়ার্ল্ডে প্রচার হবে আজ রাত ৮টার বাংলা সংবাদের পর। ইত্যাদির রচনা, পরিচালনা ও উপস্থাপনা করেছেন হানিফ সংকেত। নির্মাণ করেছে ফাগুন অডিও ভিশন।