উন্নয়ন কাজ করতে না দেয়ার প্রতিবাদে মিথ্যে মামলা দিয়ে হয়রানি

0
116

প্রেস বিজ্ঞপ্তি:
সাতক্ষীরায় ইউনিয়ন পরিষদের বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কাজে অংশিদারিত্ব করতে না দেয়ার প্রতিবাদ করায় কালিগঞ্জ উপজেলার বিষ্ণপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শেখ রিয়াজ উদ্দিন তার পরিষদের একজন সদস্যের নামে মিথ্যে মামলা দিয়ে হয়রানি করছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। সোমবার দুপুরে সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে এই অভিযোগ করেন বিষ্ণপুর ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের সদস্য নীলকন্ঠপুর গ্রামের মৃত বদর উদ্দিনের ছেলে মোঃ খলিলুর রহমান।
লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, বিগত ইউপি নির্বাচনের পূর্বে কালিগঞ্জ উপজেলার বিষ্ণপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগ দলীয় প্রার্থী হিসাবে মনোনয়ন পেতে তার অপন ভাই উপজেলা আ’লীগের সহ-সভাপতি নুরুল ইসলাম বর্তমান চেয়ারম্যান শেখ রিয়াজ উদ্দিনের সঙ্গে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে ১ভোটে হেরে যান। এঘটনার পর প্রতিহিংসার বশবর্তী হয়ে সদস্য পদে নির্বাচনে তিনি (রিয়াজ উদ্দিন) তার বিরুদ্ধে প্রার্থী দাড় করিয়ে দেন। কিন্ত শেখ রিয়াজ উদ্দিনের চরম বিরোধীতা সত্বেও বিষ্ণপুর ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ড থেকে সদস্য পদে নির্বাচন করে তিনি (খলিল) জয়লাভ করেন। ইউপি সদস্য নির্বাচিত হওয়ার পর তার প্রতি চেয়ারম্যানের রাগ ও ক্ষোভ আরও বেড়ে যায়। পরবর্তীতে সরকার কর্তৃক ইউনিয়ন পরিষদে বরাদ্দকৃত সকল উন্নয়ন মূলক কাজ থেকে তাকে বঞ্চিত করা হয়। ওয়ার্ড ভিত্তিক সরকার প্রদত্ত ভিজিডি কার্ড, ৪০ দিনের কর্মসূচী, বিধবা ভাতা, বয়স্ক ভাতা ও রেশন কার্ড বিতরণসহ সকল প্রকার উন্নয়ন মূলক কাজ তাকে দিয়ে না করিয়ে চেয়ারম্যান তার পছেন্দের লোক দিয়ে করাচ্ছেন। ইউনিয়নের উন্নয়ন মূলক কাজে অংশ গ্রহণ থেকে বঞ্চিত করার প্রতিবাদ করায় চেয়ারম্যানে তাকে বিভিন্ন ভাবে ভয়ভীতি দেখানোর পাশাপাশি মিথ্যে মামলা দিয়ে হয়রানি করার হুমকি দেন।
তিনি অভিযোগ করে বলেন, ইউনিয়নের উন্নয়ন মূলক কাজে অংশ গ্রহণের নায্য দাবি করায় চেয়ারম্যান গত ১ জানুয়ারী তাকেসহ তার পরিবারের সদস্যদের নামে কালিগঞ্জ থানায় একটি মিথ্যে মামলা (জিআর-০১/১৭) দায়ের করেন। পরবর্তীতে আদালতে আরও একটি (সিআর-৩৩/১৭) মামলা দায়ের করেন। এসব বিষয়ে কালিগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে লিখিত অভিযোগ করেও কোন প্রতিকার না পেয়ে তিনি সাতক্ষীরা স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ-পরিচালকের কাছে আরো একটি অভিযোগ করেছেন। তিনি একজন নির্বাচিত সদস্য হিসাবে যাতে তার ওয়ার্ডের সকল উন্নয়নমূলক কাজে অংশ গ্রহণ করতে পারেন তার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণে জেলা প্রশাসকসহ সংশ্লিষ্ট সকলের জরুরী হস্তক্ষেপ কামনা করেন।