আশাশুনিতে মৎস্য ঘেরে হামলা লুটপাটের অভিযোগে মামলা ॥ পাল্টা মামলার চেষ্টা

0
130

আশাশুনি প্রতিনিধিঃ

আশাশুনি উপজেলার গাবতলা গ্রামে মৎস্য ঘেরে হামলা, লুটপাট ও শ্বাসরোধ করে হত্যা চেষ্টার অভিযোগে মামলা দায়ের করা হয়েছে। প্রতিপক্ষ মামলার হাত থেকে রক্ষা পেতে মিথ্যা অভিযোগ দাড় করিয়ে পাল্টা মামলা দায়েরের চেষ্টা করে যাচ্ছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। গাবতলা মৌজায় এসএ খতিয়ান নং- ১ এর ১২৭, ১২৮সহ বিভিন্ন দাগে ২.৫০ একর জমিসহ আরও কিছু জমি বাংলাদেশ সরকার বাহাদুর এলএ ৫৪/৬৫-৬৬ নং কেসমুলে অধিগ্রহণ করেন। এবং বাইরের অতিরিক্ত জমি বাংলাদেশ পাানি উন্নয়ন বোর্ডের পক্ষে নির্বাহী প্রকৌশলী সাতক্ষীরা পওর বিভাগ-২ পাউবো সাতক্ষীলরা সমন্বিত মৎস্য চাষ উন্নয়ন কল্পে ইজারা দেওয়ার প্রস্তাব করলে মৃত রাজেন্দ্র নাথ দাশের ছেলে কালিপদ দাশসহ কতক সুফলভোগি সদস্য জমি ইজারা গ্রহণ করেন। প্রতিপক্ষ ১৮/৬/১৭ তাং মৎস্য ঘেরে অবৈধ প্রবেশ করে কালিপদকে বেদম মারপিট করে। তার স্ত্রী ও সন্তান ঠেকাতে গেলে তাদেরকেও মারপিট ও গলায় ফাঁস দিয়ে হত্যার চেষ্টা করে। বাসা ভাংচুর, ক্যাস বাক্স থেকে নগদ টাকা ছিনিয়ে নেয়। এব্যাপারে বিজ্ঞ সিনিঃ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আমলী আদালত-০৮ সাতক্ষীরায় দেবব্রত সরকার, শ্রীকান্ত সানাসহ আক্রমণকারীদের বিরুদ্ধে সিআরপি ১০৩/১৭ মামলা দায়ের করা হয়েছে। বিজ্ঞ আদালত ওসি আশাশুনিকে তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা নিতে বললে তদন্ত শেষে মামলা রেকর্ড করা হয়েছে। এদিকে মামলার আসামী দেবব্রত সরকার মামলার হাত থেকে নিজেদেরকে রক্ষার জন্য ১৯/৬/১৭ তাং পৃথক ঘটনার বর্ণনা দিয়ে বিজ্ঞ আদালতে পৃথক একটি অভিযোগ করেছেন। অথচ ওই দিন সেখানে কোন ঘটনাই ঘটেনি বলে এলাকার শত শত মানুষ জানান। শত্রুতামূলক ভাবে মাসুম বিল্লাহ, কাদের গাজী, হামিদ গাজী, আলমগীর গাজী ও নিরেন্দ্র নাথ সরকারকেও অন্যদের সাথে আসামীভুক্ত করে বিজ্ঞ আমলী আ্দালতে পাল্টা অভিযোগ দায়ের করেছেন। অথচ তারা কোন ঘটনার সাথে জড়িত ছিলেন না বা নেই। তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ খাড়া করায় এলাকাবাসী হতাশা প্রকাশ করেছেন।

জি এম মুজিবুর রহমান