আশাশুনিতে দুই সন্তানের জননীকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ

0
244

আশাশুনি প্রতিনিধি :
আশাশুনিতে ২ সন্তানের জননীকে পাষন্ড স্বামী কর্তৃক মারপীট করে হত্যার পর বিষপানে আত্মহত্যা করার অপপ্রচার চালিয়ে আসল ঘটনা ধামাচাপা দেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। ঘটনাটি ঘটেছে মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে উপজেলা সদরের কোদন্ডা গ্রামে।
হত্যার শিকার গৃহবধু সামিরনের সহোদর ও আদালতপুর গ্রামের রুহুল আমিন মিস্ত্রীর ছেলে কবির হোসেন জানান, তার বোনের সাথে বিগত ২০/২২ বছর পূর্বে পার্শ্ববর্তী কোদন্ডা গ্রামের কওছার গাজীর পুত্র সামছুর রহমান গাজীর সাথে ইসলামী শরিয়াহ মোতাবেক বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়। বিয়ের এক বছর পর থেকে সামছুর বিভিন্ন সময় অন্য নারীদের প্রতি আসক্ত ও অনৈতিক কার্যকলাপ করার অভিযোগে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে প্রায়ই কলহ-বিবাদ লেগেই থাকত। এক পর্যায়ে সামছুর স্ত্রী সামিরনকে এ বিষয় নিয়ে প্রতিবাদ করলে ব্যাপক মারপিট করতো। সামছুর বাড়ীর পাশে ধানক্ষেতে স্ত্রীকে নিয়ে বিষ প্রয়োগ করতে যায়। এসময় উভয়ের মধ্যে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে মারপিট করতে করতে বাড়ীর দিকে নেয়। বাড়ীতে নিয়ে সামছুর তার স্ত্রী সামিরনকে ঘরে ঢুকিয়ে দরজা বন্ধ করে বালিশ চাপা দিয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে বিষ পানে আত্মহত্যা করেছে বলে চিৎকার দিয়ে অপপ্রচার চালানোর চেষ্টা করে। এক পর্যায়ে দুপুর ১২টার দিকে উদ্ধার করে আশাশুনি হাসপাতালে নিলে কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে মৃত. ঘোষণা করে।
পরে পুলিশে খবর দিলে এসআই সোয়েব আলী হাসপাতালে যেয়ে সুরতহাল রিপোর্ট তৈরী করে নিহতের লাশ মর্গে পাঠানোর জন্য থানা হেফাজতে নেয়।
সরেজমিনে ঘুরে দেখা যায়, নিহতের নাক-মুখ ভ্যাসকানো ও গলায় ফোলা দাগ রয়েছে। মুখ দিয়ে রক্ত বের হতে দেখা গেছে।
এব্যাপারে থানা অফিসার ইনচার্জ গোলাম রহমান জানান, সামিরনের মৃত্যুটি স্বাভাবিক মৃত্যু নয় বলে মনে হওয়ায় তাকে ময়না তদন্তের জন্য মর্গে প্রেরনের জন্য প্রস্তুতি চলছে। আপাতত অপমৃত্যু মামলা রেকর্ড করা হয়েছে। রিপোর্ট শেষে পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। তবে গৃহবধুর পাষন্ড স্বামী সামছুর পলাতক রয়েছে।