আশাশুনিতে ঘেরের মাছ ধরায় নিষেধাজ্ঞা

0
89

ডেস্ক রিপোট: আশাশুনি সদরে বলাবাড়িয়া ভাঙ্গাবিলে মৎস্য ঘেরের জমির মালিকদের হারির টাকা পরিশোধ না হওয়া পর্যন্ত লীজ গ্রহিতাকে ঘেরের মাছ ধরতে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে।  আশাশুনি ও বড়দুর্গাপুর মৌজায় বলাবাড়িয়া ভাঙ্গাবিল এলাকার জমির মালিকগণ ২০১৩-২০১৭ সাল পর্যন্ত ৫ বছর মেয়াদে সামিয়া শ্রিম্প লিঃ এর মালিক এর সাথে নির্দিষ্ট হারির টাকা চুক্তি মোতাবেক পরিশোধ করা সাপেক্ষে লীজ (চুক্তি) সম্পাদন করেন। চুক্তি মোতাবেক জমির মালিকগণকে হারির সম্পূর্ণ টাকা প্রতি বছরের ৩০ জুনের মধ্যে পরিশোধ করার কথা। কিন্তু ঘের মালিকের প্রতিনিধি আদালতপুর গ্রামের মৃতঃ করিম মিস্ত্রীর ছেলে অজিয়ার রহমান ও অজ্ঞাত ঠিকানার মোহাম্মদ আলি (মোহরার) বিভিন্ন সময়ে ওয়াদা করে ওয়াদা ভঙ্গ করে আসছেন। শেষ পর্যন্ত ঘেরের সাদামাছ অগ্রিম বিক্রয় করে ৩১ ডিসেম্বরের (২০১৬) মধ্যে সমুদয় টাকা পরিশোধের অঙ্গীকার করা হয়। কিন্তু ১৯ জন জমির মালিককে বকেয়া হারীর টাকা পরিশোধ না করে দুর্গাপুর গ্রামের জলিল মোড়লের পুত্র মোক্তার হোসেনের সাথে যোগসাজস করে সকল সাদা মাছ বিক্রয় করে নিচ্ছেন, এমন অভিযোগ এনে আঃ গফুর সানা, ইয়াহিয়া ইকবাল, রফিকুল ইসলাম মোল্যাসহ ১৯ জন জমির মালিক উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর প্রতিকার প্রার্থনা করে আবেদন করেন। ইউএনও মহোদয় আশাশুনি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে আইন শৃংখলা রক্ষার্থে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে বলেন। ওসি গোলাম রহমান শান্তিশৃংখলা রক্ষার্থে হারির টাকা পরিশোধ না হওয়া পর্যন্ত মাছ ধরা বন্দ রাখতে আদেশ দিয়েছেন বলে জানা গেছে।