আশাবাদী অধিনায়ক জিমি

0
104

অনলাইন ডেস্ক :

কাজটা কঠিন। মালয়েশিয়া, চীন আর মিশরকে পেছনে ফেলে টুর্নামেন্টে দ্বিতীয় হয়ে পরের রাউন্ডে উঠতে বাংলাদেশকে ভাগ্যের সহায়তাও নিতে হবে। বাংলাদেশ অধিনায়ক রাসেল মাহমুদ জিমি অবশ্য আশাবাদী। তার আশাবাদী হওয়ার কারণ দলের দীর্ঘ প্রস্তুতি। ‘আমরা প্রায় ২ মাস অনুশীলন করেছি। প্রস্তুতি ম্যাচের ভিডিও দেখে আমরা ভুলগুলো চিহ্নিত করে তা সংশোধন করছি। আমরা এখন মাঠে নিজেদের মতো করে খেলতে পারলেই প্রত্যাশা পুরুন হবে’- বলেছেন জিমি।

ঘরের মাঠে টুর্নামেন্ট বলে জিমি পরের রাউন্ডে যাওয়ার একটা ভালো সুযোগ হিসেবেও দেখছেন। বাংলাদেশ গ্রুপের কঠিন দল মালয়েশিয়া। শুধু তাই নয়, এ দলটি দ্বিতীয় রাউন্ডের ঢাকা পার্বেরও টপ ফেভারিট। কানাডা নাম প্রত্যাহার করে নেয়ায় হঠাৎই এ জোনে ঢুকেছে মালয়েশিয়া।

শনিবার এ দলটির বিপক্ষে ম্যাচ দিয়েই শুরু হবে বাংলাদেশের হকি ওয়ার্ল্ড লিগের রাউন্ড-২। র‌্যাংকিংয়ে ১৩তম স্থানে থাকা দেশটির বিপক্ষে মাঠে নামার আগেই অবশ্য হেরে বসে আছে বাংলাদেশ। জার্মান কোচ অলিভার কার্টজ খোলাখুলিই বলেছেন, ‘আমাদের চোখ আসলে পরের ২ ম্যাচে। ফিজি ও ওমানকে হারিয়ে আমরা যেতে চাই কোয়ার্টার ফাইনালে। মালয়েশিয়া অনেক কঠিন প্রতিপক্ষ।’

রাসেল মাহমুদ জিমির কণ্ঠেও একই সুর, ‘আমরা আসলে গ্রুপ রানার্সআপ হতে চাই। তাতে কোয়ার্টার ফাইনালে একটু সহজ সুযোগ পাবো। আমার ধারণা তখন ঘানা বা শ্রীলঙ্কা পড়তে পারে আমাদের সামনে।’

নিজেদের দলটিকে ব্যালান্সড মনে করছেন জিমি, ‘এখন প্রত্যেকেই ভালো হকি খেলছেন। সবার ফিটনেসও ভালো। তবে একটা বিষয় আগের হকির সঙ্গে এখনকার হকির অনেক পার্থক্য। এখন টিম স্পিডই গুরুত্ব পাচ্ছে। যে কারণে ইউরোপের দলগুলো এখন হকিতে ভালো করছে। আমরা আধুনিক হকি খেলারই চেষ্টা করছি। আমাদের লক্ষ্য থাকবে যত বেশি নিজেদের কাছে বল রাখা যায়’- বলেছেন জিমি।

এস এম পলাশ